ঢাকা ০৫:১৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের ম্যুরাল ভাংচুর

মোঃ রফিকুল ইসলাম: কিশোরগঞ্জের প্রাণ পুরুষ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও প্রাক্তন জন প্রশাসনমন্ত্রী প্রয়াত সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের ম্যুরাল ভাঙচুর করেছে দুর্বৃত্তরা। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর থেকে রাত ৮টার মধ্যে কোন এক সময় এটি ভাঙচুর করা হয় বলে অনেকের ধারণা।

কিশোরগঞ্জ শহরের কালীবাড়ি সড়কে নরসুন্দা নদীর তীরে কিশোরগঞ্জ পৌরসভা কর্তৃপক্ষ সম্প্রতি ম্যুরালটি নির্মাণ করে। গত বছরের ৩০ নভেম্বর মেয়র পারভেজ মিয়া এটি উদ্বোধন করেন। দুর্বৃত্তরা সৈয়দ আশরাফের ছবি সংবলিত ম্যুরাল এবং মেয়র পারভেজ মিয়ার উদ্বোধনী স্মৃতিফলকটি ভেঙ্গে ফেলে।

খবর পেয়ে রাত সাড়ে ১০টার দিকে কিশোরগঞ্জ-৪ (ইটনা, মিঠামইন, অষ্টগ্রাম) আসনের সংসদ সদস্য রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শামীম আলম, পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার) ও পৌরসভার মেয়র পারভেজ মিয়া ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

মেয়র পারভেজ মিয়া এ প্রসঙ্গে বলেন, আমার লাগানো স্মৃতিফলক ভেঙ্গেছে সেটা বড় কথা নয়, কিন্তু আমাদের আবেগ ও অনুভূতির মানুষ আশরাফ ভাইয়ের ম্যুরাল ভাঙচুর করা হয়েছে, সেটা মেনে নিতে পারছিনা। এ ব্যাপারে তিনি থানায় সাধারণ ডায়রি করবেন বলে জানান।

এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানালেন পুলিশ সুপার ও জেলা প্রশাসক।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের ম্যুরাল ভাংচুর

আপডেট সময় ১১:১৮:০৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১

মোঃ রফিকুল ইসলাম: কিশোরগঞ্জের প্রাণ পুরুষ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও প্রাক্তন জন প্রশাসনমন্ত্রী প্রয়াত সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের ম্যুরাল ভাঙচুর করেছে দুর্বৃত্তরা। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর থেকে রাত ৮টার মধ্যে কোন এক সময় এটি ভাঙচুর করা হয় বলে অনেকের ধারণা।

কিশোরগঞ্জ শহরের কালীবাড়ি সড়কে নরসুন্দা নদীর তীরে কিশোরগঞ্জ পৌরসভা কর্তৃপক্ষ সম্প্রতি ম্যুরালটি নির্মাণ করে। গত বছরের ৩০ নভেম্বর মেয়র পারভেজ মিয়া এটি উদ্বোধন করেন। দুর্বৃত্তরা সৈয়দ আশরাফের ছবি সংবলিত ম্যুরাল এবং মেয়র পারভেজ মিয়ার উদ্বোধনী স্মৃতিফলকটি ভেঙ্গে ফেলে।

খবর পেয়ে রাত সাড়ে ১০টার দিকে কিশোরগঞ্জ-৪ (ইটনা, মিঠামইন, অষ্টগ্রাম) আসনের সংসদ সদস্য রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শামীম আলম, পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার) ও পৌরসভার মেয়র পারভেজ মিয়া ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

মেয়র পারভেজ মিয়া এ প্রসঙ্গে বলেন, আমার লাগানো স্মৃতিফলক ভেঙ্গেছে সেটা বড় কথা নয়, কিন্তু আমাদের আবেগ ও অনুভূতির মানুষ আশরাফ ভাইয়ের ম্যুরাল ভাঙচুর করা হয়েছে, সেটা মেনে নিতে পারছিনা। এ ব্যাপারে তিনি থানায় সাধারণ ডায়রি করবেন বলে জানান।

এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানালেন পুলিশ সুপার ও জেলা প্রশাসক।