ঢাকা ০৩:২২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সাবেক সাংসদ সোহরাব উদ্দিনকে কেন্দ্র করে বিক্ষোভে উত্তাল পাকুন্দিয়া

মোঃরফিকুল ইসলাম (কিশোরগঞ্জ থেকে) সাবেক সাংসদ সোহরাব উদ্দিনকে পাকুন্দিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক করায় বিক্ষোভে ফেটে পড়েছে পাকুন্দিয়ার আওয়ামীলীগ সমর্থন কারীদের একটি অংশ।

পাকুন্দিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের নবগঠিত কমিটির আহবায়ক হিসেবে এডভোকেট সোহরাব উদ্দিনকে আহবায়ক কমিটি থেকে প্রত্যাহারেরর দাবীতে শনিবার সকালে মানব বন্ধন কর্মসুচীর আয়োজন করে আওয়ামী লীগের একাংশের নেতারা। এই  কর্মসূচী এক পর্যায়ে বিক্ষোভে রূপ নেয়।

সকাল সাড়ে ১০টায় পাকুন্দিয়া সদরে মানববন্ধন কর্মসূচি শুরু হয়। চলে বেলা সাড়ে ১২টা পর্যন্ত। হাজারো নেতাকর্মীর বিক্ষোভে পাকুন্দিয়া সদরের মূল সড়ক প্রায় দুই ঘন্টা অবরুদ্ধ থাকে।

পাকুন্দিয়া উপজেলা আহ্বায়ক কমিটির সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক মোতায়েম হোসেন স্বপনের সভাপতিত্বে কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন পাকুন্দিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট হুমায়ুন কবীর, জেলা শ্রমিক লীগের উপদেষ্টা আতাউল্লাহ সিদ্দিক মাসুদ, উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি নাজমুল ইসলাম দেওয়ান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক কোষাধ্যক্ষ বোরহান উদ্দিন, নারান্দি ইউপি চেয়ারম্যান ভিপি শফিকুল ইসলাম শফিক, বুরুদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান নাজমুল হুদা রুবেল, সুখিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হামিদ টিটু, উপজেলা কৃষক লীগের সাবেক সভাপতি বাবুল আহমেদ প্রমুখ।

পরে ‍ডাক বাংলোয় সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে মোতায়েম হোসেন স্বপন বলেন, মানবতাবিরোধী অপরাধ ট্রাইব্যুনালে তদন্তাধীন একটি মামলায় অভিযুক্ত সোহরাব উদ্দিন ও তার পরিবার জীবনে কোনদিন নৌকায় ভোট দেননি। অথচ বিগত দিনে জাতীয় পার্টি থেকে এসে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আওয়ামী লীগের এমপি নির্বাচিত হয়েছেন। এমপি হওয়ার পর আওয়ামী লীগের অনেক নেতাকর্মীর নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করেছেন। ত্যাগী নেতাকর্মীদেরকে দলীয় কর্মকাণ্ড করতে দেননি। দলের ত্যাগী ও যোগ্য অনেক নেতা থাকার পরও সোহরাব উদ্দিনকে আহ্বায়ক মনোনীত করা হয়েছে। এক্ষেত্রে স্থানীয় সংসদ সদস্য নূর মোহাম্মদকে অবগত কিংবা পাকুন্দিয়ার নেতাকর্মীদের মতামতও নেওয়া হয়নি।

এ অবস্থায় সোহরাব উদ্দিনকে এলাকায় অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে তাকে কোন কর্মকাণ্ড চালাতে দেওয়া হবেনা বলে সংবাদ সম্মেলনে ঘোষণা দেওয়া হয়। তারা এক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় সোহরাব উদ্দিনকে পাকুন্দিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক মনোনীত করা হয়।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

সাবেক সাংসদ সোহরাব উদ্দিনকে কেন্দ্র করে বিক্ষোভে উত্তাল পাকুন্দিয়া

আপডেট সময় ০১:০৯:৫১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১

মোঃরফিকুল ইসলাম (কিশোরগঞ্জ থেকে) সাবেক সাংসদ সোহরাব উদ্দিনকে পাকুন্দিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক করায় বিক্ষোভে ফেটে পড়েছে পাকুন্দিয়ার আওয়ামীলীগ সমর্থন কারীদের একটি অংশ।

পাকুন্দিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের নবগঠিত কমিটির আহবায়ক হিসেবে এডভোকেট সোহরাব উদ্দিনকে আহবায়ক কমিটি থেকে প্রত্যাহারেরর দাবীতে শনিবার সকালে মানব বন্ধন কর্মসুচীর আয়োজন করে আওয়ামী লীগের একাংশের নেতারা। এই  কর্মসূচী এক পর্যায়ে বিক্ষোভে রূপ নেয়।

সকাল সাড়ে ১০টায় পাকুন্দিয়া সদরে মানববন্ধন কর্মসূচি শুরু হয়। চলে বেলা সাড়ে ১২টা পর্যন্ত। হাজারো নেতাকর্মীর বিক্ষোভে পাকুন্দিয়া সদরের মূল সড়ক প্রায় দুই ঘন্টা অবরুদ্ধ থাকে।

পাকুন্দিয়া উপজেলা আহ্বায়ক কমিটির সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক মোতায়েম হোসেন স্বপনের সভাপতিত্বে কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন পাকুন্দিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট হুমায়ুন কবীর, জেলা শ্রমিক লীগের উপদেষ্টা আতাউল্লাহ সিদ্দিক মাসুদ, উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি নাজমুল ইসলাম দেওয়ান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক কোষাধ্যক্ষ বোরহান উদ্দিন, নারান্দি ইউপি চেয়ারম্যান ভিপি শফিকুল ইসলাম শফিক, বুরুদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান নাজমুল হুদা রুবেল, সুখিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হামিদ টিটু, উপজেলা কৃষক লীগের সাবেক সভাপতি বাবুল আহমেদ প্রমুখ।

পরে ‍ডাক বাংলোয় সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে মোতায়েম হোসেন স্বপন বলেন, মানবতাবিরোধী অপরাধ ট্রাইব্যুনালে তদন্তাধীন একটি মামলায় অভিযুক্ত সোহরাব উদ্দিন ও তার পরিবার জীবনে কোনদিন নৌকায় ভোট দেননি। অথচ বিগত দিনে জাতীয় পার্টি থেকে এসে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আওয়ামী লীগের এমপি নির্বাচিত হয়েছেন। এমপি হওয়ার পর আওয়ামী লীগের অনেক নেতাকর্মীর নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করেছেন। ত্যাগী নেতাকর্মীদেরকে দলীয় কর্মকাণ্ড করতে দেননি। দলের ত্যাগী ও যোগ্য অনেক নেতা থাকার পরও সোহরাব উদ্দিনকে আহ্বায়ক মনোনীত করা হয়েছে। এক্ষেত্রে স্থানীয় সংসদ সদস্য নূর মোহাম্মদকে অবগত কিংবা পাকুন্দিয়ার নেতাকর্মীদের মতামতও নেওয়া হয়নি।

এ অবস্থায় সোহরাব উদ্দিনকে এলাকায় অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে তাকে কোন কর্মকাণ্ড চালাতে দেওয়া হবেনা বলে সংবাদ সম্মেলনে ঘোষণা দেওয়া হয়। তারা এক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় সোহরাব উদ্দিনকে পাকুন্দিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক মনোনীত করা হয়।