ঢাকা ০৬:৫০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ মে ২০২৪, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সন্তানদের বিলাসবহুল বাড়িতেও অসুস্থ বাবা’র আশ্রয় নেই!

অ আ আবীর আকাশ, লক্ষ্মীপুর জেলা সংবাদদাতাঃ-
লক্ষ্মীপুর অসুস্থ বাবাকে ঘরের বাহিরে উঠানে ফেলে রেখেছে তার সন্তানরা।
শুক্রবার সকাল থেকে সন্তানেরা ঘরের সামনে অসুস্থ শফিকুল ইসলাম(৯৫)কে পড়ে থাকতে দেখা যায়। পরে স্থানীয়রা প্রশাসনকে অবহিত করলে খবর পেয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ঘটনাস্থলে যান।
ঘটনাটি ঘটে লক্ষ্মীপুর পৌর শহরের ১নং ওয়ার্ডের মেঘনা রোড সংলগ্ন স্বপ্ন মহলের সামনে।
স্থানীয়রা জানায়, অসুস্থ শফিকুলের ৪ ছেলে ও ৩ মেয়ে। দীর্ঘদিন যাবত তিনি বাধ্যকজনিত রোগে ভুগছেন। গত দুইবছর আগে তিনি সন্তানদের সম্পত্তি ভাগ করে দেন। তার এক ছেলে বিজিবিতে চাকুরি করে, আরেক ছেলে সেনাবাহিনী থেকে অবসরপ্রাপ্ত, একজন মারা গেছে এবং অন্যজন প্রবাসী। সকল ছেলেই প্রতিষ্ঠিত।
লক্ষ্মীপুর পৌর ১নং ওয়ার্ডে সবারই বিলাশবহুল বাড়ি রয়েছে। তারপরও বাবার পরিচর্যা করতে অপারগতা প্রকাশ করে তাদের বাড়ির বাহিরে উঠানে ফেলে রাখে ছেলেরা। পরে স্থানীয়রা প্রশাসনকে খবর দিলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রাসেল ইকবাল ও মোঃ রাজীব হোসেন ঘটনাস্থালে যান এবং বিষয়টি বিস্তারিত শুনে ছেলের দায়িত্ব নিতে বলেন।
তারা কেউ বাবাকে নিতে রাজি না হওয়ায় অসুস্থ শফিকুলের বড় মেয়ে সুরাইয়া তার বাবাকে নিতে ইচ্ছে প্রকাশ করেন। পরে ম্যাজিস্ট্রেটের গাড়িতে করে অসুস্থ শফিকুলকে মেয়ে সুরাইয়ার বাড়িতে পাঠিয়ে দেন।
নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রাসেল ইকবাল বলেন, বৃদ্ধ লোকটি অসুস্থ হওয়ায় কোন ছেলে রাখতে চাচ্ছে না। তাই তারা বাড়ির বাহিরে ফেলে রেখেছে। পরে অসুস্থ শফিকুলের এক মেয়ে এসে তাকে নিতে ইচ্ছা পোষন করে। আমরা আমাদের ব্যবস্থাপনায় তাকে মেয়ের বাড়ি দিয়ে আসি।
ট্যাগস

সন্তানদের বিলাসবহুল বাড়িতেও অসুস্থ বাবা’র আশ্রয় নেই!

আপডেট সময় ০৪:৩০:৪৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১০ জুলাই ২০২১
অ আ আবীর আকাশ, লক্ষ্মীপুর জেলা সংবাদদাতাঃ-
লক্ষ্মীপুর অসুস্থ বাবাকে ঘরের বাহিরে উঠানে ফেলে রেখেছে তার সন্তানরা।
শুক্রবার সকাল থেকে সন্তানেরা ঘরের সামনে অসুস্থ শফিকুল ইসলাম(৯৫)কে পড়ে থাকতে দেখা যায়। পরে স্থানীয়রা প্রশাসনকে অবহিত করলে খবর পেয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ঘটনাস্থলে যান।
ঘটনাটি ঘটে লক্ষ্মীপুর পৌর শহরের ১নং ওয়ার্ডের মেঘনা রোড সংলগ্ন স্বপ্ন মহলের সামনে।
স্থানীয়রা জানায়, অসুস্থ শফিকুলের ৪ ছেলে ও ৩ মেয়ে। দীর্ঘদিন যাবত তিনি বাধ্যকজনিত রোগে ভুগছেন। গত দুইবছর আগে তিনি সন্তানদের সম্পত্তি ভাগ করে দেন। তার এক ছেলে বিজিবিতে চাকুরি করে, আরেক ছেলে সেনাবাহিনী থেকে অবসরপ্রাপ্ত, একজন মারা গেছে এবং অন্যজন প্রবাসী। সকল ছেলেই প্রতিষ্ঠিত।
লক্ষ্মীপুর পৌর ১নং ওয়ার্ডে সবারই বিলাশবহুল বাড়ি রয়েছে। তারপরও বাবার পরিচর্যা করতে অপারগতা প্রকাশ করে তাদের বাড়ির বাহিরে উঠানে ফেলে রাখে ছেলেরা। পরে স্থানীয়রা প্রশাসনকে খবর দিলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রাসেল ইকবাল ও মোঃ রাজীব হোসেন ঘটনাস্থালে যান এবং বিষয়টি বিস্তারিত শুনে ছেলের দায়িত্ব নিতে বলেন।
তারা কেউ বাবাকে নিতে রাজি না হওয়ায় অসুস্থ শফিকুলের বড় মেয়ে সুরাইয়া তার বাবাকে নিতে ইচ্ছে প্রকাশ করেন। পরে ম্যাজিস্ট্রেটের গাড়িতে করে অসুস্থ শফিকুলকে মেয়ে সুরাইয়ার বাড়িতে পাঠিয়ে দেন।
নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রাসেল ইকবাল বলেন, বৃদ্ধ লোকটি অসুস্থ হওয়ায় কোন ছেলে রাখতে চাচ্ছে না। তাই তারা বাড়ির বাহিরে ফেলে রেখেছে। পরে অসুস্থ শফিকুলের এক মেয়ে এসে তাকে নিতে ইচ্ছা পোষন করে। আমরা আমাদের ব্যবস্থাপনায় তাকে মেয়ের বাড়ি দিয়ে আসি।