ঢাকা ১১:২৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কঠোর নিষেধাজ্ঞা সত্বেও হোটেল রেস্তোরাঁ ও দোকানপাট খোলা!

অ আ আবীর আকাশ, লক্ষ্মীপুর জেলা সংবাদদাতাঃ লক্ষ্মীপুর জেলা জুড়ে কঠোর নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও হোটেল-রেস্তোরাঁ খোলা রয়েছে এমনকি বিভিন্ন প্রাইভেট কোচিং এ শিক্ষার্থীরা নির্দ্বিধায় যাতায়াত করছে। ঝড় হচ্ছে বিভিন্ন স্থানে, দোকানপাটে। এই নিয়ে প্রশাসনের ঢিলেঢালা দায়িত্ব পালন করতে দেখা যায়। জেলা সদরের উত্তর ইস্টিশন দক্ষিণ স্টেশন ঝুমুর কিছুটা পুলিশের দায়িত্ব পালন দেখা গেলেও বাকি সব আগের মতোই রয়েছে চলছে বাঘ ব্যতীত সকল ধরনের যানবাহন। সিএনজি অটোরিকশা রিক্সায় যাত্রী বোঝাই করে চলছে। এদিকে প্রশাসনে ভ্রুক্ষেপ নেই। এমন চিত্র
লক্ষ্মীপুরসহ পাঁচ উপজেলায় দেখা গেছে। লকডাউন থাকা সত্ত্বেও খোলা রয়েছে সব ধরনের দোকানপাট। স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকলেও প্রাইভেট শিক্ষকদের বাসা-বাড়ি থেকে ব্যাগ কাঁধে বের হতে দেখা গেছে শিক্ষার্থীদের।
সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত লক্ষ্মীপুর সরকারি কলেজ, চকবাজারসহ শহরের বিভিন্ন স্থান, রায়পুর শহরের মার্চ্চেন্টস একাডেমি, মহিলা কলেজের সামনে, গাজি কমপ্লেক্স, বালিকা বিদ্যালয়ের পাশে ও উপজেলা পরিষদের পাশেসহ মীরগঞ্জ সড়ক পর্যন্ত দোকানপাট খোলা ও ব্যাগ কাঁধে শিক্ষার্থীদের আনাগোনা দেখা যায়। তবে প্রাইভেট শিক্ষকের কাছ থেকে আসায় শিক্ষার্থীদের দলবদ্ধ দেখা গেছে। রিকশা ব্যতীত অন্যান্য যান চলাচলে নিষেধ থাকলেও ব্যাটারি চালিত ও সিএনজি চালিত অটোরিকশা চলতে দেখা গেছে। বাজারে আসা জনসাধারণে মুখে মাস্ক ব্যবহার বেড়েছে।
এদিকে-জেলা শহরের চক বাজার-রায়পুরের প্রধান সড়কসহ পুরো শহরেরে পোশাক বিতানগুলো খোলা দেখা গেছে। ম্যাজিষ্ট্রেট আসতেই দোকানের সার্টার নামিয়ে ফেলা হয়েছে। এছাড়া কয়েকটি দোকানে দেখা যায়, অর্ধেক সার্টার নামানো, ভেতরে বিক্রেতারা বেচাকেনাতে ব্যস্ত। ক্রেতাদের উপস্থিতিও সরব।
সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্র জানায়, বুধবারের​ ফলাফলে ১৯৩ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৩৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।
জেলা প্রশাসক আনোয়ার হুছাইন আকন্দ সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানিয়েছেন, পণ্যবাহী পরিবহন ও রিকশা ব্যতীত সকল গণপরিবহন বন্ধ থাকবে। শপিংমল, মার্কেট, পর্যটন কেন্দ্র, রিসোর্ট, কমিউনিটি সেন্টার ও বিনোদন কেন্দ্র বন্ধ থাকবে। খাবারের দোকান ও হোটেল-রেস্তোরা সকাল ৮ টা থেকে রাত ৮ টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। তবে খাবার অর্ডার দিয়ে নিয়ে যেতে পারবে।
ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

কঠোর নিষেধাজ্ঞা সত্বেও হোটেল রেস্তোরাঁ ও দোকানপাট খোলা!

আপডেট সময় ১২:৩২:১২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৪ জুলাই ২০২১
অ আ আবীর আকাশ, লক্ষ্মীপুর জেলা সংবাদদাতাঃ লক্ষ্মীপুর জেলা জুড়ে কঠোর নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও হোটেল-রেস্তোরাঁ খোলা রয়েছে এমনকি বিভিন্ন প্রাইভেট কোচিং এ শিক্ষার্থীরা নির্দ্বিধায় যাতায়াত করছে। ঝড় হচ্ছে বিভিন্ন স্থানে, দোকানপাটে। এই নিয়ে প্রশাসনের ঢিলেঢালা দায়িত্ব পালন করতে দেখা যায়। জেলা সদরের উত্তর ইস্টিশন দক্ষিণ স্টেশন ঝুমুর কিছুটা পুলিশের দায়িত্ব পালন দেখা গেলেও বাকি সব আগের মতোই রয়েছে চলছে বাঘ ব্যতীত সকল ধরনের যানবাহন। সিএনজি অটোরিকশা রিক্সায় যাত্রী বোঝাই করে চলছে। এদিকে প্রশাসনে ভ্রুক্ষেপ নেই। এমন চিত্র
লক্ষ্মীপুরসহ পাঁচ উপজেলায় দেখা গেছে। লকডাউন থাকা সত্ত্বেও খোলা রয়েছে সব ধরনের দোকানপাট। স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকলেও প্রাইভেট শিক্ষকদের বাসা-বাড়ি থেকে ব্যাগ কাঁধে বের হতে দেখা গেছে শিক্ষার্থীদের।
সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত লক্ষ্মীপুর সরকারি কলেজ, চকবাজারসহ শহরের বিভিন্ন স্থান, রায়পুর শহরের মার্চ্চেন্টস একাডেমি, মহিলা কলেজের সামনে, গাজি কমপ্লেক্স, বালিকা বিদ্যালয়ের পাশে ও উপজেলা পরিষদের পাশেসহ মীরগঞ্জ সড়ক পর্যন্ত দোকানপাট খোলা ও ব্যাগ কাঁধে শিক্ষার্থীদের আনাগোনা দেখা যায়। তবে প্রাইভেট শিক্ষকের কাছ থেকে আসায় শিক্ষার্থীদের দলবদ্ধ দেখা গেছে। রিকশা ব্যতীত অন্যান্য যান চলাচলে নিষেধ থাকলেও ব্যাটারি চালিত ও সিএনজি চালিত অটোরিকশা চলতে দেখা গেছে। বাজারে আসা জনসাধারণে মুখে মাস্ক ব্যবহার বেড়েছে।
এদিকে-জেলা শহরের চক বাজার-রায়পুরের প্রধান সড়কসহ পুরো শহরেরে পোশাক বিতানগুলো খোলা দেখা গেছে। ম্যাজিষ্ট্রেট আসতেই দোকানের সার্টার নামিয়ে ফেলা হয়েছে। এছাড়া কয়েকটি দোকানে দেখা যায়, অর্ধেক সার্টার নামানো, ভেতরে বিক্রেতারা বেচাকেনাতে ব্যস্ত। ক্রেতাদের উপস্থিতিও সরব।
সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্র জানায়, বুধবারের​ ফলাফলে ১৯৩ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৩৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।
জেলা প্রশাসক আনোয়ার হুছাইন আকন্দ সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানিয়েছেন, পণ্যবাহী পরিবহন ও রিকশা ব্যতীত সকল গণপরিবহন বন্ধ থাকবে। শপিংমল, মার্কেট, পর্যটন কেন্দ্র, রিসোর্ট, কমিউনিটি সেন্টার ও বিনোদন কেন্দ্র বন্ধ থাকবে। খাবারের দোকান ও হোটেল-রেস্তোরা সকাল ৮ টা থেকে রাত ৮ টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। তবে খাবার অর্ডার দিয়ে নিয়ে যেতে পারবে।