ঢাকা ১১:৩৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সোমালিয়ায় আত্মঘাতী হামলায় ১৫ জন নিহত

জঙ্গি সংঘটন আল শাবাবের আত্মঘাতী বোমা হামলায় সোমালিয়ার রাজধানী মোগাদিশুতে অন্তত ১৫ জন নিহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।
মঙ্গলবার বার্তা সংস্থা রয়টার্সের একজন প্রত্যক্ষদর্শী সাংবাদিক জানিয়েছেন সেনাবাহিনীর একটি শিবিরের সামনে নতুন নিয়োগকৃতদের লাইন লক্ষ্য করে এ হামলা চালানো হয়। নগরীর একটি হাসপাতালে নিহতদের লাশও গুনেছেন তিনি।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, ওই লাশগুলো মোগাদিশুর জেনারেল দেগাবান সামরিক প্রশিক্ষণ শিবিরের বাইরে একটি চেকপয়েন্টে চালানো হামলায় যারা নিহত হয়েছেন, তাদের বলে নিশ্চিত করেছেন হাসপাতালটিতে থাকা কর্মকর্তারা। আল শাবাবের রেডিও আল আনদালুসে বলা হয়েছে, জঙ্গি গোষ্ঠীটির যোদ্ধারা হামলাটি চালিয়েছে।
সোমালিয়ার পশ্চিমা সমর্থিত সরকারকে উচ্ছেদ করে আল শাবাব দেশটিতে তাদের নিজস্ব ধরনের কঠোর ইসলামি শরিয়াভিত্তিক শাসন চালু করতে চায়। গোষ্ঠীটি প্রায়ই এ ধরনের প্রাণঘাতী হামলা চালায়। নিখোঁজ স্বজনদের খোঁজে মদিনা হাসপাতালের সামনে বহু লোক জড়ো হয়েছিলেন। তাদের একজন, আমিনা ফারাহকে ধরে রেখেছিলেন তার পরিবারের সদস্যরা।
ক্রন্দনরত আমিনা বলেন, “আমার ছেলেকে মেরে ফেলেছে। আমি নিজের চোখে দেখেছি। অনেক ছেলে মারা গেছে। তাদের সেনাবাহিনীতে যোগ দেওয়ার জন্য আসতে বলা হয়েছিল আর তাদের ওপরই বোমা হামলা হল। সরকার অন্যান্য হতাহতদের লুকিয়ে রেখেছে।”
এ অভিযোগের বিষয়ে মন্তব্যের জন্য দেশটির সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে তাৎক্ষণিকভাবে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

ট্যাগস

সোমালিয়ায় আত্মঘাতী হামলায় ১৫ জন নিহত

আপডেট সময় ০৩:৩৭:১৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১

জঙ্গি সংঘটন আল শাবাবের আত্মঘাতী বোমা হামলায় সোমালিয়ার রাজধানী মোগাদিশুতে অন্তত ১৫ জন নিহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।
মঙ্গলবার বার্তা সংস্থা রয়টার্সের একজন প্রত্যক্ষদর্শী সাংবাদিক জানিয়েছেন সেনাবাহিনীর একটি শিবিরের সামনে নতুন নিয়োগকৃতদের লাইন লক্ষ্য করে এ হামলা চালানো হয়। নগরীর একটি হাসপাতালে নিহতদের লাশও গুনেছেন তিনি।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, ওই লাশগুলো মোগাদিশুর জেনারেল দেগাবান সামরিক প্রশিক্ষণ শিবিরের বাইরে একটি চেকপয়েন্টে চালানো হামলায় যারা নিহত হয়েছেন, তাদের বলে নিশ্চিত করেছেন হাসপাতালটিতে থাকা কর্মকর্তারা। আল শাবাবের রেডিও আল আনদালুসে বলা হয়েছে, জঙ্গি গোষ্ঠীটির যোদ্ধারা হামলাটি চালিয়েছে।
সোমালিয়ার পশ্চিমা সমর্থিত সরকারকে উচ্ছেদ করে আল শাবাব দেশটিতে তাদের নিজস্ব ধরনের কঠোর ইসলামি শরিয়াভিত্তিক শাসন চালু করতে চায়। গোষ্ঠীটি প্রায়ই এ ধরনের প্রাণঘাতী হামলা চালায়। নিখোঁজ স্বজনদের খোঁজে মদিনা হাসপাতালের সামনে বহু লোক জড়ো হয়েছিলেন। তাদের একজন, আমিনা ফারাহকে ধরে রেখেছিলেন তার পরিবারের সদস্যরা।
ক্রন্দনরত আমিনা বলেন, “আমার ছেলেকে মেরে ফেলেছে। আমি নিজের চোখে দেখেছি। অনেক ছেলে মারা গেছে। তাদের সেনাবাহিনীতে যোগ দেওয়ার জন্য আসতে বলা হয়েছিল আর তাদের ওপরই বোমা হামলা হল। সরকার অন্যান্য হতাহতদের লুকিয়ে রেখেছে।”
এ অভিযোগের বিষয়ে মন্তব্যের জন্য দেশটির সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে তাৎক্ষণিকভাবে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি বলে জানিয়েছে রয়টার্স।