ঢাকা ০৫:২৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ নভেম্বর ২০২৩, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশ সহ দক্ষিণ এশিয়ার কয়েকটি দেশের জন্য ইতালি ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকানোর জন্য বাংলাদেশসহ দক্ষিণ এশিয়ার কয়েকটি দেশের জন্য ইতালি ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে।
ইতালি সরকারের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে রবিবার বলা হয়েছে, বাংলাদেশের পাশাপাশি ভারত এবং শ্রীলঙ্কার নাগরিকেরা ২১ জুন পর্যন্ত ইতালি ভ্রমণ করতে পারবেন না। তবে ইতালির নাগরিকেরা এই নিষেধাজ্ঞার আওতায় পড়বেন না।
করোনার ভারতীয় ধরন ঠেকাতে ইতালি এপ্রিলের শেষ দিকে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল। রবিবার সেটি শেষ হওয়ার কথা ছিল।
গত ২৯ এপ্রিল দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়, ‘শেষ ১৪ দিনের ভেতর বাংলাদেশে থেকেছেন অথবা বাংলাদেশ হয়ে আসছেন এমন কোনো ব্যক্তি কোনো সীমান্ত এলাকা দিয়ে যেন প্রবেশ করতে না পারেন, সে জন্য মন্ত্রণালয় একটি নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করেছে।’
গত বছর করোনাভাইরাস সংক্রমণের প্রথম ঢেউ চলার সময়েও বাংলাদেশ থেকে ভ্রমণকারীদের ইতালি প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছিল।
ইতালিতে প্রায় ৪২ লাখ মানুষ নতুন রোগটিতে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন। মারা গেছেন ১ লাখ ২৬ হাজার। সেরে উঠেছেন ৩৮ লাখ মানুষ।

ট্যাগস

বাংলাদেশ সহ দক্ষিণ এশিয়ার কয়েকটি দেশের জন্য ইতালি ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে

আপডেট সময় ০৩:২২:৪৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১ জুন ২০২১

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকানোর জন্য বাংলাদেশসহ দক্ষিণ এশিয়ার কয়েকটি দেশের জন্য ইতালি ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে।
ইতালি সরকারের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে রবিবার বলা হয়েছে, বাংলাদেশের পাশাপাশি ভারত এবং শ্রীলঙ্কার নাগরিকেরা ২১ জুন পর্যন্ত ইতালি ভ্রমণ করতে পারবেন না। তবে ইতালির নাগরিকেরা এই নিষেধাজ্ঞার আওতায় পড়বেন না।
করোনার ভারতীয় ধরন ঠেকাতে ইতালি এপ্রিলের শেষ দিকে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল। রবিবার সেটি শেষ হওয়ার কথা ছিল।
গত ২৯ এপ্রিল দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়, ‘শেষ ১৪ দিনের ভেতর বাংলাদেশে থেকেছেন অথবা বাংলাদেশ হয়ে আসছেন এমন কোনো ব্যক্তি কোনো সীমান্ত এলাকা দিয়ে যেন প্রবেশ করতে না পারেন, সে জন্য মন্ত্রণালয় একটি নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করেছে।’
গত বছর করোনাভাইরাস সংক্রমণের প্রথম ঢেউ চলার সময়েও বাংলাদেশ থেকে ভ্রমণকারীদের ইতালি প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছিল।
ইতালিতে প্রায় ৪২ লাখ মানুষ নতুন রোগটিতে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন। মারা গেছেন ১ লাখ ২৬ হাজার। সেরে উঠেছেন ৩৮ লাখ মানুষ।