ঢাকা ০১:১০ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

টানা ১১ দিন হামলার পর আন্তর্জাতিক চাপের মুখে যুদ্ধ বিরতিতে রাজি হয়েছে ইসরায়েল

অবশেষে আশার আলো জ্বলতে শুরু করেছে ফিলিস্তিন ইসরায়েল যুদ্ধের! টানা ১১ দিন অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় হামলা চালানোর পর আন্তর্জাতিক চাপের মুখে যুদ্ধবিরতিতে রাজি হয়েছে ইসরায়েল। দেশটির প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর নেতৃত্বে আজ বৃহস্পতিবার মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর ইসরায়েল সরকার এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম বিবিসি।
গাজায় বিবিসির প্রতিনিধি রুশদি আবুয়ালউফ এক টুইট বার্তায় লিখেছেন, যুদ্ধবিরতি আলোচনার সঙ্গে জড়িত সূত্র বিবিসিকে বলেছেন, যুদ্ধবিরতি নিয়ে নিজেদের অবস্থান মিসরকে জানিয়েছে ইসরায়েল। এই যুদ্ধবিরতি নিয়ে আলোচনায় সক্রিয় ভূমিকা পালন করছে মিসর।
চাপের মুখে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর সঙ্গে ফোনালাপে সংঘাত বন্ধ করার আহ্বান জানানোর পরপরই বৃহস্পতিবার যুদ্ধবিরতির কথা জোরালো হয়। তারপরই মন্ত্রীদের নিয়ে বৈঠকে বসেন নেতানিয়াহু। সেখান থেকেই আনে যুদ্ধবিরতির সিদ্ধান্ত।
গাজায় যুদ্ধবিরতি কার্যকরে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ও সংস্থার কূটনৈতিক প্রচেষ্টা জোরদার হয়েছে বৃহস্পতিবার। ফিলিস্তিনি এই ভূখণ্ডে মানবিক সঙ্কট চরম আকার ধারণ করায় বিশ্বের পরাশক্তিগুলো উভয়পক্ষকে যুদ্ধে বিরতি দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে। তবে গাজার ক্ষমতাসীন শাসকগোষ্ঠী হামাসের সঙ্গে ইসরায়েলের লড়াই এখনও অব্যাহত আছে।
১৯৩ সদস্যের জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদ বৃহস্পতিবার এক অধিবেশনে মিলিত হয়েছে। এই অধিবেশনে ইসরায়েল-ফিলিস্তিনের নতুন করে সংঘাতের বিষয়ে আলোচনা হলেও কোনও পদক্ষেপ নিতে পারেনি সংস্থাটি।
উল্লেখ্য ফিলিস্তিনে ইসরায়েলের ছোড়া ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় নারীও শিশু দের আত্ব চিৎকারে পৃথিবীর শান্তিপ্রিয় মানুষদের প্রতিবাদ বিশ্বজুড়ে অব্যাহত রয়েছে।

ট্যাগস

টানা ১১ দিন হামলার পর আন্তর্জাতিক চাপের মুখে যুদ্ধ বিরতিতে রাজি হয়েছে ইসরায়েল

আপডেট সময় ১১:১৪:২৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ মে ২০২১

অবশেষে আশার আলো জ্বলতে শুরু করেছে ফিলিস্তিন ইসরায়েল যুদ্ধের! টানা ১১ দিন অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় হামলা চালানোর পর আন্তর্জাতিক চাপের মুখে যুদ্ধবিরতিতে রাজি হয়েছে ইসরায়েল। দেশটির প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর নেতৃত্বে আজ বৃহস্পতিবার মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর ইসরায়েল সরকার এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম বিবিসি।
গাজায় বিবিসির প্রতিনিধি রুশদি আবুয়ালউফ এক টুইট বার্তায় লিখেছেন, যুদ্ধবিরতি আলোচনার সঙ্গে জড়িত সূত্র বিবিসিকে বলেছেন, যুদ্ধবিরতি নিয়ে নিজেদের অবস্থান মিসরকে জানিয়েছে ইসরায়েল। এই যুদ্ধবিরতি নিয়ে আলোচনায় সক্রিয় ভূমিকা পালন করছে মিসর।
চাপের মুখে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর সঙ্গে ফোনালাপে সংঘাত বন্ধ করার আহ্বান জানানোর পরপরই বৃহস্পতিবার যুদ্ধবিরতির কথা জোরালো হয়। তারপরই মন্ত্রীদের নিয়ে বৈঠকে বসেন নেতানিয়াহু। সেখান থেকেই আনে যুদ্ধবিরতির সিদ্ধান্ত।
গাজায় যুদ্ধবিরতি কার্যকরে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ও সংস্থার কূটনৈতিক প্রচেষ্টা জোরদার হয়েছে বৃহস্পতিবার। ফিলিস্তিনি এই ভূখণ্ডে মানবিক সঙ্কট চরম আকার ধারণ করায় বিশ্বের পরাশক্তিগুলো উভয়পক্ষকে যুদ্ধে বিরতি দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে। তবে গাজার ক্ষমতাসীন শাসকগোষ্ঠী হামাসের সঙ্গে ইসরায়েলের লড়াই এখনও অব্যাহত আছে।
১৯৩ সদস্যের জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদ বৃহস্পতিবার এক অধিবেশনে মিলিত হয়েছে। এই অধিবেশনে ইসরায়েল-ফিলিস্তিনের নতুন করে সংঘাতের বিষয়ে আলোচনা হলেও কোনও পদক্ষেপ নিতে পারেনি সংস্থাটি।
উল্লেখ্য ফিলিস্তিনে ইসরায়েলের ছোড়া ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় নারীও শিশু দের আত্ব চিৎকারে পৃথিবীর শান্তিপ্রিয় মানুষদের প্রতিবাদ বিশ্বজুড়ে অব্যাহত রয়েছে।