ঢাকা ১০:১০ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

এবার গন্ধ শুঁকে করোনা ভাইরাসের পরিক্ষা করবে মৌমাছি!

এবার প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন কি না তা পরীক্ষার জন্য এক অভিনব কৌশলের কথা জানালেন বিজ্ঞানীরা। তারা জানান করোনা পরিক্ষার সময় কমাতে এই ভিন্ন পন্থা অবলম্বন করছেন । মৌমাছি দিয়ে স্বল্প সময়ে করোনা পরীক্ষার ফলাফল হাতে পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছেন গবেষকরা। এ পদ্ধতিতে নমুনা সংগ্রহের প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই পরীক্ষার ফল জানা যাবে।
ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম বিজনেস ইনসাইডার ইন্ডিয়ার বরাতে জানা যায়, নেদারল্যান্ডসের এক দল গবেষক দাবি করছেন, মৌমাছিদের ঘ্রাণশক্তি প্রবল হওয়ায় করোনা সনাক্তের ক্ষেত্রে এটাকেই কাজে লাগিয়েছেন তারা। ১৫০ মৌমাছিকে রীতিমতো এর জন্য প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে নেদারল্যান্ডসের ওয়াজেনিনজেন বিশ্ববিদ্যালয়ের জৈব-পশু-চিকিৎসা গবেষণাগারে।
ভাইরাস-বিদ্যার অধ্যাপক উইম ভ্যান দের পোয়েল বলেছেন, করোনা পজিটিভ এবং কোভিড নেগেটিভ ব্যক্তিদের থেকে প্রথমে লালারসের নমুনা সংগ্রহ করেন তারা। প্রতি বার ওই মৌমাছিদের করোনা পজিটিভ ব্যক্তির থেকে সংগৃহীত নমুনার সংস্পর্শে এনেই তাদের চিনি যুক্ত পানি খেতে দেওয়া হয়। এতে দেখা যার করোনা আক্রান্ত ব্যক্তিদের নমুনার গন্ধ নেওয়ার পর চিনিযুক্ত পানিতে তাদের শুঁড় বাড়িয়ে দিয়েছে।
কিন্তু করোনা নেগেটিভ ব্যক্তিদের নমুনা নেওয়ার পর মৌমাছিরা এমনটা করে না।
এই পদ্ধতিতে ওই প্রশিক্ষিত মৌমাছিদের সংস্পর্শে নমুনা আনলে তারা প্রবোসিস বার করছে কি না তা দেখেই বোঝা সম্ভব ওই ব্যক্তির মধ্যে সংক্রমণ রয়েছে কি না।
গবেষকেরা বলছেন, প্রচলিত উপায়ে করোনা শনাক্তে কয়েক ঘণ্টা থেকে কয়েক দিন সময় লেগে যায়। তবে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত মৌমাছি দিয়ে শনাক্ত করলে কয়েক সেকেন্ডেই ফলাফল পাওয়া যায়। এটি খুবই ব্যয়সাশ্রয়ী ও কার্যকর একটি প্রক্রিয়া। তাৎক্ষণিকভাবে ফল হাতে পাওয়া যায়।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

এবার গন্ধ শুঁকে করোনা ভাইরাসের পরিক্ষা করবে মৌমাছি!

আপডেট সময় ১১:১২:৫২ অপরাহ্ন, শনিবার, ৮ মে ২০২১

এবার প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন কি না তা পরীক্ষার জন্য এক অভিনব কৌশলের কথা জানালেন বিজ্ঞানীরা। তারা জানান করোনা পরিক্ষার সময় কমাতে এই ভিন্ন পন্থা অবলম্বন করছেন । মৌমাছি দিয়ে স্বল্প সময়ে করোনা পরীক্ষার ফলাফল হাতে পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছেন গবেষকরা। এ পদ্ধতিতে নমুনা সংগ্রহের প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই পরীক্ষার ফল জানা যাবে।
ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম বিজনেস ইনসাইডার ইন্ডিয়ার বরাতে জানা যায়, নেদারল্যান্ডসের এক দল গবেষক দাবি করছেন, মৌমাছিদের ঘ্রাণশক্তি প্রবল হওয়ায় করোনা সনাক্তের ক্ষেত্রে এটাকেই কাজে লাগিয়েছেন তারা। ১৫০ মৌমাছিকে রীতিমতো এর জন্য প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে নেদারল্যান্ডসের ওয়াজেনিনজেন বিশ্ববিদ্যালয়ের জৈব-পশু-চিকিৎসা গবেষণাগারে।
ভাইরাস-বিদ্যার অধ্যাপক উইম ভ্যান দের পোয়েল বলেছেন, করোনা পজিটিভ এবং কোভিড নেগেটিভ ব্যক্তিদের থেকে প্রথমে লালারসের নমুনা সংগ্রহ করেন তারা। প্রতি বার ওই মৌমাছিদের করোনা পজিটিভ ব্যক্তির থেকে সংগৃহীত নমুনার সংস্পর্শে এনেই তাদের চিনি যুক্ত পানি খেতে দেওয়া হয়। এতে দেখা যার করোনা আক্রান্ত ব্যক্তিদের নমুনার গন্ধ নেওয়ার পর চিনিযুক্ত পানিতে তাদের শুঁড় বাড়িয়ে দিয়েছে।
কিন্তু করোনা নেগেটিভ ব্যক্তিদের নমুনা নেওয়ার পর মৌমাছিরা এমনটা করে না।
এই পদ্ধতিতে ওই প্রশিক্ষিত মৌমাছিদের সংস্পর্শে নমুনা আনলে তারা প্রবোসিস বার করছে কি না তা দেখেই বোঝা সম্ভব ওই ব্যক্তির মধ্যে সংক্রমণ রয়েছে কি না।
গবেষকেরা বলছেন, প্রচলিত উপায়ে করোনা শনাক্তে কয়েক ঘণ্টা থেকে কয়েক দিন সময় লেগে যায়। তবে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত মৌমাছি দিয়ে শনাক্ত করলে কয়েক সেকেন্ডেই ফলাফল পাওয়া যায়। এটি খুবই ব্যয়সাশ্রয়ী ও কার্যকর একটি প্রক্রিয়া। তাৎক্ষণিকভাবে ফল হাতে পাওয়া যায়।