ঢাকা ০৫:৩৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যে যেখানেই আছেন সে সেখানে থেকেই এবারের ঈদ উদযাপনের আহবান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

আসছে পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে জনসাধারণকে ছোটাছুটি না করে, যে যেখানে আছেন,সে সেখানেই থেকে ঈদ উদযাপন করতে আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, আর যারা বিত্তশালী আছেন, তারা দুস্থদের সহযোগিতা করুন, সেটা আরও বেশি সওয়াবের কাজ হবে বলে আমি মনে করি।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ বৃহস্পতিবার (০৬ মে) সকালে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বিভিন্ন সংস্থার অবকাঠামো ও জলযানের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। তিনি বলেন করোনা যাতে সারা বাংলাদেশে ছড়িয়ে না পড়ে সে জন্য সকলের কাছে আমার অনুরোধ- আপনারা স্বাস্থ্যসুরক্ষা মেনে চলুন। আর এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় যাতায়াত একেবারে না পারলেই করবেন না। কারণ যাতায়াত করতে গেলেই কে যে সংক্রমিত আপনি জানেন না, কিন্তু সে যখন অন্য জায়গায় যাবে অনেক লোককে করোনা সংক্রমিত করবে। তখন তাদের জীবন নিয়ে সমস্যা দেখা দিবে, সেটা যাতে না হয় সেজন্যই আমরা যাতায়াতের সীমিত করার পদক্ষেপ নিয়েছি। সেই সঙ্গে দেশের মানুষের আর্থিক ও সামাজিক কর্মকাণ্ডগুলো যেন অব্যাহত থাকে সেটাও সীমিত আকারে স্বাস্থ্যবিধি মেনে করার ব্যবস্থা করেছি। আমরা আমাদের নিজেদের ও পরিবারের স্বজনদের সুস্থ রাখতে এই কষ্টটুকু আমাদের স্বীকার করতে হবে আমরা দেশবাসীর সহযোগিতা পেলে খুব শিগগিরই এই মহামারী থেকে বেরিয়ে আসতে পারবো ইনশাআল্লাহ।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

যে যেখানেই আছেন সে সেখানে থেকেই এবারের ঈদ উদযাপনের আহবান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

আপডেট সময় ১২:০১:১১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৭ মে ২০২১

আসছে পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে জনসাধারণকে ছোটাছুটি না করে, যে যেখানে আছেন,সে সেখানেই থেকে ঈদ উদযাপন করতে আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, আর যারা বিত্তশালী আছেন, তারা দুস্থদের সহযোগিতা করুন, সেটা আরও বেশি সওয়াবের কাজ হবে বলে আমি মনে করি।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ বৃহস্পতিবার (০৬ মে) সকালে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বিভিন্ন সংস্থার অবকাঠামো ও জলযানের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। তিনি বলেন করোনা যাতে সারা বাংলাদেশে ছড়িয়ে না পড়ে সে জন্য সকলের কাছে আমার অনুরোধ- আপনারা স্বাস্থ্যসুরক্ষা মেনে চলুন। আর এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় যাতায়াত একেবারে না পারলেই করবেন না। কারণ যাতায়াত করতে গেলেই কে যে সংক্রমিত আপনি জানেন না, কিন্তু সে যখন অন্য জায়গায় যাবে অনেক লোককে করোনা সংক্রমিত করবে। তখন তাদের জীবন নিয়ে সমস্যা দেখা দিবে, সেটা যাতে না হয় সেজন্যই আমরা যাতায়াতের সীমিত করার পদক্ষেপ নিয়েছি। সেই সঙ্গে দেশের মানুষের আর্থিক ও সামাজিক কর্মকাণ্ডগুলো যেন অব্যাহত থাকে সেটাও সীমিত আকারে স্বাস্থ্যবিধি মেনে করার ব্যবস্থা করেছি। আমরা আমাদের নিজেদের ও পরিবারের স্বজনদের সুস্থ রাখতে এই কষ্টটুকু আমাদের স্বীকার করতে হবে আমরা দেশবাসীর সহযোগিতা পেলে খুব শিগগিরই এই মহামারী থেকে বেরিয়ে আসতে পারবো ইনশাআল্লাহ।