ঢাকা ১০:৫৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

করোনার দ্রুত সংক্রামক ভারতীয় নতুন এই ধরন বিশ্বের ১৭টি দেশে ছড়িয়েছে

মহামারী করোনা ভাইরাসের ভারতীয় নতুন এই ধরনটি বিশ্বের আরও অন্তত ১৭টি দেশে ছড়িয়েছে বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।
আজ মঙ্গলবার (২৭ এপ্রিল) করোনা পরিস্থিতির সাপ্তাহিক ব্রিফিংয়ে এমন তথ্য জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।
সংস্থা টি বলছে করোনার বি.১.৬১৭ ধরনটি প্রথমে ভারতে শনাক্ত হয়। এখন এটি অন্তত বিশ্বের ১৭টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। তবে এ ধরন ভারত ছাড়াও যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র ও সিঙ্গাপুর থেকেও ছড়িয়েছে।
ভারতে করোনার অন্যান্য যে ধরন রয়েছে তার চেয়ে এটি অনেক বেশি সংক্রামক বলে জানিয়েছে ডব্লিউএইচও। তারা বলছে, তবে একই সঙ্গে দেশটিতে অন্যান্য ধরনগুলোও আগের চেয়ে বেশি সংক্রামক হয়ে উঠেছে। এর ফলে ভারতে করোনা মারাত্মক রূপ নিয়েছে। পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে প্রথম দফার চেয়ে দ্বিতীয় দফায় সংক্রমণ খুব দ্রুত ঘটছে।
তবে ভারতে করোনার সংক্রমণ খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়ার পেছনে আরও কিছু কারণ থাকতে পারে বলে মনে করছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। এ বিষয়ে আরও গবেষণা প্রয়োজন বলে মনে করছে তারা।
উল্লেখ্য, ভারতে বুধবার পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে মৃত্যু দুই লাখ ছাড়িয়ে গেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে প্রথমবারের মতো তিন হাজারেরও বেশি লোক মারা গেছে। একই সময়ে ৩ লাখ ৬০ হাজারের বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছে যা বিশ্ব রেকর্ড।
দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের উপাত্ত থেকে জানা গেছে, করোনা মহামারীতে এ পর্যন্ত দেশটিতে ২ লাখ ১ হাজার ১৮৭ জন মারা গেছে। তবে প্রকৃত সংখ্যা আরও বেশি হতে পারে বলে বিশেষজ্ঞদের ধারণা।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

করোনার দ্রুত সংক্রামক ভারতীয় নতুন এই ধরন বিশ্বের ১৭টি দেশে ছড়িয়েছে

আপডেট সময় ০১:১৩:০৭ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ এপ্রিল ২০২১

মহামারী করোনা ভাইরাসের ভারতীয় নতুন এই ধরনটি বিশ্বের আরও অন্তত ১৭টি দেশে ছড়িয়েছে বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।
আজ মঙ্গলবার (২৭ এপ্রিল) করোনা পরিস্থিতির সাপ্তাহিক ব্রিফিংয়ে এমন তথ্য জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।
সংস্থা টি বলছে করোনার বি.১.৬১৭ ধরনটি প্রথমে ভারতে শনাক্ত হয়। এখন এটি অন্তত বিশ্বের ১৭টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। তবে এ ধরন ভারত ছাড়াও যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র ও সিঙ্গাপুর থেকেও ছড়িয়েছে।
ভারতে করোনার অন্যান্য যে ধরন রয়েছে তার চেয়ে এটি অনেক বেশি সংক্রামক বলে জানিয়েছে ডব্লিউএইচও। তারা বলছে, তবে একই সঙ্গে দেশটিতে অন্যান্য ধরনগুলোও আগের চেয়ে বেশি সংক্রামক হয়ে উঠেছে। এর ফলে ভারতে করোনা মারাত্মক রূপ নিয়েছে। পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে প্রথম দফার চেয়ে দ্বিতীয় দফায় সংক্রমণ খুব দ্রুত ঘটছে।
তবে ভারতে করোনার সংক্রমণ খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়ার পেছনে আরও কিছু কারণ থাকতে পারে বলে মনে করছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। এ বিষয়ে আরও গবেষণা প্রয়োজন বলে মনে করছে তারা।
উল্লেখ্য, ভারতে বুধবার পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে মৃত্যু দুই লাখ ছাড়িয়ে গেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে প্রথমবারের মতো তিন হাজারেরও বেশি লোক মারা গেছে। একই সময়ে ৩ লাখ ৬০ হাজারের বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছে যা বিশ্ব রেকর্ড।
দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের উপাত্ত থেকে জানা গেছে, করোনা মহামারীতে এ পর্যন্ত দেশটিতে ২ লাখ ১ হাজার ১৮৭ জন মারা গেছে। তবে প্রকৃত সংখ্যা আরও বেশি হতে পারে বলে বিশেষজ্ঞদের ধারণা।