ঢাকা ০৬:৫৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মসজিদের নিলামের লাউ নিয়ে কথা-কাটাকাটির জের ধরে হামলা! গুরুতর আহত একজন

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি :: সিলেটের বিশ্বনাথে রামপাশা ইউনিয়নের কাদিপুর গ্রামে মসজিদে কথা কাটাকাটির জের ধরে প্রতিপক্ষ লেখন্দর আলী গংদের হামলায় মৃত মজিদ আলীর ছেলে রফিক আলী( ৫৫) নামে একজন গুরুতর আহত হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শুক্রবার দুপুরে উপজেলার কাদিপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
গুরুতর আহত রফিক আলীকে স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা গ্রহণ করছেন। পরে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
এ ঘটনায় রফিক আলীর স্ত্রী হাসিনা বেগম বাদি হয়ে ৮ জনের নামউল্লেখ করে বিশ্বনাথ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।
অভিযোগে উল্লেখ করেন, (১৬ এপ্রিল) শুক্রবার মসজিদে নামাজ শেষে মসজিদের জায়গায় চাষ করা ৫টি নিলামের লাউ ২০০টাকায় ক্রয় করেন লেকন্দর আলী। লাউয়ের টাকা কবে দিবে জিজ্ঞেস করিলে বিবাদীবলে যেই দিন মন চায় সেই দিন দিবো বলিয়া জবাব দিলে রফিক আলী বলে মসজিদের টাকা একটু তারা তারি দিলে ভালো হবে।
এ কথা নিয়ে দুজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি ও তর্কাতর্কি হয়। তর্কাতর্কির এক পর্যায়ে মোবাইল ফোনে লেকন্দর আলী তার ছেলের সাথে কথা বলে। এসময় উপস্থিত লোকজন বিষয়টি মিমাংসা করে দেন।
এরই জের ধরে বাড়িতে ফেরার পথে রফিক আলীর উপর হামলা করে প্রতিপক্ষের লোকজন। কেউ তাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে তাদেরকে হামলা করবে বলে অভিযোগ করেন রফিক আলীর লোকজন।
হামলাকারীরা হলেন, মৃত সমুজ আলীর ছেলে লেকন্দর আলী ( ৫০) লেকন্দর আলীর ছেলে মোহাম্মদ আলী ( ৩৫) সেলিম মিয়া (৩০) আলিম উদ্দিন (৩১) মোহাম্মদ আলীর ছেলে জুবেল (২০) সোলেমান (২৪) মৃত আকবর আলীর ছেলে আলা উদ্দিন (৪০) সিহাব উদ্দিন (২৫)।
এব্যাপারে বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) শামীম মূসা বলেন, অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্তা গ্রহণ করা হবে বলে তিনি জানান।

ট্যাগস

মসজিদের নিলামের লাউ নিয়ে কথা-কাটাকাটির জের ধরে হামলা! গুরুতর আহত একজন

আপডেট সময় ০৬:২৫:৪৮ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২১

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি :: সিলেটের বিশ্বনাথে রামপাশা ইউনিয়নের কাদিপুর গ্রামে মসজিদে কথা কাটাকাটির জের ধরে প্রতিপক্ষ লেখন্দর আলী গংদের হামলায় মৃত মজিদ আলীর ছেলে রফিক আলী( ৫৫) নামে একজন গুরুতর আহত হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শুক্রবার দুপুরে উপজেলার কাদিপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
গুরুতর আহত রফিক আলীকে স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা গ্রহণ করছেন। পরে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
এ ঘটনায় রফিক আলীর স্ত্রী হাসিনা বেগম বাদি হয়ে ৮ জনের নামউল্লেখ করে বিশ্বনাথ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।
অভিযোগে উল্লেখ করেন, (১৬ এপ্রিল) শুক্রবার মসজিদে নামাজ শেষে মসজিদের জায়গায় চাষ করা ৫টি নিলামের লাউ ২০০টাকায় ক্রয় করেন লেকন্দর আলী। লাউয়ের টাকা কবে দিবে জিজ্ঞেস করিলে বিবাদীবলে যেই দিন মন চায় সেই দিন দিবো বলিয়া জবাব দিলে রফিক আলী বলে মসজিদের টাকা একটু তারা তারি দিলে ভালো হবে।
এ কথা নিয়ে দুজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি ও তর্কাতর্কি হয়। তর্কাতর্কির এক পর্যায়ে মোবাইল ফোনে লেকন্দর আলী তার ছেলের সাথে কথা বলে। এসময় উপস্থিত লোকজন বিষয়টি মিমাংসা করে দেন।
এরই জের ধরে বাড়িতে ফেরার পথে রফিক আলীর উপর হামলা করে প্রতিপক্ষের লোকজন। কেউ তাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে তাদেরকে হামলা করবে বলে অভিযোগ করেন রফিক আলীর লোকজন।
হামলাকারীরা হলেন, মৃত সমুজ আলীর ছেলে লেকন্দর আলী ( ৫০) লেকন্দর আলীর ছেলে মোহাম্মদ আলী ( ৩৫) সেলিম মিয়া (৩০) আলিম উদ্দিন (৩১) মোহাম্মদ আলীর ছেলে জুবেল (২০) সোলেমান (২৪) মৃত আকবর আলীর ছেলে আলা উদ্দিন (৪০) সিহাব উদ্দিন (২৫)।
এব্যাপারে বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) শামীম মূসা বলেন, অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্তা গ্রহণ করা হবে বলে তিনি জানান।