ঢাকা ০২:২৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

দুর্নীতির অভিযোগে ফ্রান্সের সাবেক প্রেসিডেন্টের তিন বছরের কারাদণ্ড!

ডেস্ক রিপোর্টঃ সাবেক ফরাসি প্রেসিডেন্ট নিকোলাস সারকোজিকে তিন বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন প্যারিসের একটি আদালত। সোমবার (১ মার্চ) তার বিরুদ্ধে তোলা দুর্নীতির অভিযোগ প্রমাণ হওয়ায় এই সাজা পেতে হলো তাকে। এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ গণমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ৬৬ বছর বয়সী সাবেক এ ফরাসি প্রেসিডেন্ট ২০০৭ থেকে ২০১২ পর্যন্ত ক্ষমতায় ছিলেন। সে সময় তিনি তার আইনজীবী ও একজন সিনিয়র ম্যাজিস্ট্রেটকে নিয়ে আইন ভঙ্গ করার একটি পরিকল্পনা হাতে নিয়েছিলেন। পরে এ বিষয়ে আদালতে মামলা করা হয়।
রায়ে সেই ম্যাজিস্ট্রেট গিলবার্ট আজিবার্ট এবং সারকোজির সাবেক আইনজীবী থিয়েরি হারজোগকেও তিন বছর করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। তবে কারাগারে না গিয়ে সাবেক প্রেসিডেন্ট বাড়িতে থেকেই দণ্ড ভোগ করতে পারবেন। সেক্ষেত্রে শরীরে একটি ইলেক্ট্রিক ট্যাগ পরতে হবে তাকে।
রায় ঘোষণার সময় বিচারক বলেছেন, সারকোজি জানতেন তিনি যা করছেন তা ভুল। তার এবং আইনজীবী হারজগের কর্মকাণ্ড জনগণের কাছে বিচার ব্যবস্থা সম্পর্কে খুব বাজে ছবি উপস্থাপন করেছে।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

দুর্নীতির অভিযোগে ফ্রান্সের সাবেক প্রেসিডেন্টের তিন বছরের কারাদণ্ড!

আপডেট সময় ০২:৩৮:৩৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২ মার্চ ২০২১

ডেস্ক রিপোর্টঃ সাবেক ফরাসি প্রেসিডেন্ট নিকোলাস সারকোজিকে তিন বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন প্যারিসের একটি আদালত। সোমবার (১ মার্চ) তার বিরুদ্ধে তোলা দুর্নীতির অভিযোগ প্রমাণ হওয়ায় এই সাজা পেতে হলো তাকে। এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ গণমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ৬৬ বছর বয়সী সাবেক এ ফরাসি প্রেসিডেন্ট ২০০৭ থেকে ২০১২ পর্যন্ত ক্ষমতায় ছিলেন। সে সময় তিনি তার আইনজীবী ও একজন সিনিয়র ম্যাজিস্ট্রেটকে নিয়ে আইন ভঙ্গ করার একটি পরিকল্পনা হাতে নিয়েছিলেন। পরে এ বিষয়ে আদালতে মামলা করা হয়।
রায়ে সেই ম্যাজিস্ট্রেট গিলবার্ট আজিবার্ট এবং সারকোজির সাবেক আইনজীবী থিয়েরি হারজোগকেও তিন বছর করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। তবে কারাগারে না গিয়ে সাবেক প্রেসিডেন্ট বাড়িতে থেকেই দণ্ড ভোগ করতে পারবেন। সেক্ষেত্রে শরীরে একটি ইলেক্ট্রিক ট্যাগ পরতে হবে তাকে।
রায় ঘোষণার সময় বিচারক বলেছেন, সারকোজি জানতেন তিনি যা করছেন তা ভুল। তার এবং আইনজীবী হারজগের কর্মকাণ্ড জনগণের কাছে বিচার ব্যবস্থা সম্পর্কে খুব বাজে ছবি উপস্থাপন করেছে।