ঢাকা ১২:৪৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

গানের ভেতর প্রাণ খুঁজেন গীতিকার হেলাল মিয়া

আহমদ আলী হিরন, বিশ্বনাথ থেকেঃ আমার মরণের বেলায় স্বজনরা বসিয়া কাছে কলমা পড়িবায়…. এরকম শতাধিক গানের রচয়িতা বিশ্বনাথ উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের ভাটিপাড়া গ্রামের কৃতি সন্তান একজন বাউল মনা সহজ সরল প্রকৃতির মানুষ গীতিকার হেলাল মিয়া, সাবেক মেম্বার ২নং ওয়ার্ড, যার ছোটবেলা থেকেই গানের জগতেই বসবাস গান যার প্রাণের খোরাক যিনি গানের সুরে প্রাণ খুঁজে পান, এ রকম শত শত গান উপহার দিয়ে যাচ্ছেন নিরবে নিবৃত্তে, একজন সাদা মনের মানুষ হেলাল মিয়ার সাথে কথা হয়,গান নিয়ে তিনি বলেন আমি ছোটবেলা থেকেই গানের প্রতি আগ্রহী গান আমার পেশা গান আমার নেশা আমি গানের ভেতর খুঁজে পাই আমার প্রাণের স্পন্দন, বাউল ফকির আবদুল করিম,ফকির দুর্বিন শাহ, রাধারমন, আজ তাদের শ্রদ্ধাভরে স্বরণ করি, তাদের উত্তর সুরী হিসেব নিজেকে জীবনের বাকিটা সময় কাটিয়ে দিতে চাই। গীতিকার হেলাল মিয়া একজন সফল সাবেক মেম্বার ও একজন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, অবসর সময়ে তিনি গানের চর্চা করেন। গানকে ভালবেসে ইদানীং তিনির কয়েকটি গান ইউটিউব চ্যানেলে কন্ঠ শিল্পী সালেকের কন্ঠে প্রকাশ পেয়েছে। অত্যন্ত গর্বের সাথে বলতে হয় এই হেলাল মিয়া একজন গুনী গীতিকার হবার পরেও মনের মাঝে একটু ও হিংসা বিদ্বেষ নাই। যখনই অবসর সময় কাটান তিনি তার গানের মাঝে ডুবে যান
হেলাল মিয়ার স্বপ্ন অদুর ভবিষতে তিনি দেশসেরা একজন গীতিকার হয়ে , তা্র জীবের বাকিটা সময় মানুষের পাশে থেকেই গানের চর্চা করে যেতে চান, তিনি সকলের নিকট দোয়া কামনা করেছেন।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

গানের ভেতর প্রাণ খুঁজেন গীতিকার হেলাল মিয়া

আপডেট সময় ০৩:৫৬:০৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১

আহমদ আলী হিরন, বিশ্বনাথ থেকেঃ আমার মরণের বেলায় স্বজনরা বসিয়া কাছে কলমা পড়িবায়…. এরকম শতাধিক গানের রচয়িতা বিশ্বনাথ উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের ভাটিপাড়া গ্রামের কৃতি সন্তান একজন বাউল মনা সহজ সরল প্রকৃতির মানুষ গীতিকার হেলাল মিয়া, সাবেক মেম্বার ২নং ওয়ার্ড, যার ছোটবেলা থেকেই গানের জগতেই বসবাস গান যার প্রাণের খোরাক যিনি গানের সুরে প্রাণ খুঁজে পান, এ রকম শত শত গান উপহার দিয়ে যাচ্ছেন নিরবে নিবৃত্তে, একজন সাদা মনের মানুষ হেলাল মিয়ার সাথে কথা হয়,গান নিয়ে তিনি বলেন আমি ছোটবেলা থেকেই গানের প্রতি আগ্রহী গান আমার পেশা গান আমার নেশা আমি গানের ভেতর খুঁজে পাই আমার প্রাণের স্পন্দন, বাউল ফকির আবদুল করিম,ফকির দুর্বিন শাহ, রাধারমন, আজ তাদের শ্রদ্ধাভরে স্বরণ করি, তাদের উত্তর সুরী হিসেব নিজেকে জীবনের বাকিটা সময় কাটিয়ে দিতে চাই। গীতিকার হেলাল মিয়া একজন সফল সাবেক মেম্বার ও একজন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, অবসর সময়ে তিনি গানের চর্চা করেন। গানকে ভালবেসে ইদানীং তিনির কয়েকটি গান ইউটিউব চ্যানেলে কন্ঠ শিল্পী সালেকের কন্ঠে প্রকাশ পেয়েছে। অত্যন্ত গর্বের সাথে বলতে হয় এই হেলাল মিয়া একজন গুনী গীতিকার হবার পরেও মনের মাঝে একটু ও হিংসা বিদ্বেষ নাই। যখনই অবসর সময় কাটান তিনি তার গানের মাঝে ডুবে যান
হেলাল মিয়ার স্বপ্ন অদুর ভবিষতে তিনি দেশসেরা একজন গীতিকার হয়ে , তা্র জীবের বাকিটা সময় মানুষের পাশে থেকেই গানের চর্চা করে যেতে চান, তিনি সকলের নিকট দোয়া কামনা করেছেন।