ঢাকা ১০:০০ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

২৭শে জানুয়ারি প্রকাশিত সংবাদ শিরোনামের সংশোধনী

বিশ্বনাথে হত্যাচেষ্টা-শ্লীলতাহানির অভিযোগে মামলা, প্রধান আসামী দাঙ্গাবাজ ছয়ফুল জেলহাজতের পরিবর্তে বিশ্বনাথের সন্ত্রাসী ছইফুল জেল হাজতে’ নামক সংবাদ শিরোনাম করায় টাইম নিউজ ইউকে বিডি পরিবার আন্তরিক ভাবে দুঃখ প্রকাশ করছে। সহকারী সম্পাদকের মাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদটি সম্পাদকের দৃষ্টিগোচরে আসলে তা সংশোধন করা হয়। নিম্নে মূল সংবাদটি হুবহু দেয়া হলো।

বিশ্বনাথ (সিলেট) প্রতিনিধিঃ সিলেটের বিশ্বনাথ পৌরসভায় সবজি ক্ষেত থেকে বাছুর তাড়িয়ে দেওয়ায় একটি পরিবারের উপর হামলা ও পরিবারের এক মহিলা সদস্যের শ্লীলতাহানী করার অভিযোগে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের শিমুলতলা (নয়াবাড়ী) গ্রামের আবদুস সালামের ছেলে ছইফুল ইসলামকে (৩২) প্রধান আসামী করে ৫জনের বিরুদ্ধে মঙ্গলবার (২৬ জানুয়ারি) মামলাটি দায়ের করেন একই গ্রামের আবদুল আহাদের ছেলে ছাদিকুর রহমান সাজুল। মামলা নং-২৫। মামলার অন্য আসামীরা হলেন ছইফুল ইসলামের ভাই কামরুল ইসলাম (৩৬), বদরুল ইসলাম (৩৪), তাদের পিতা আবদুস সালাম ডুমাই (৬০), বোন আসমা বেগম (২১)।

মামলার এজাহারে ছাদিকুর রহমান সাজুল উল্লেখ করেন, অভিযুক্তরা অত্যন্ত উগ্র, দাঙ্গাবাজ ও লাঠিয়াল প্রকৃতির লোক। তাদের সাথে মামলা ও বিভিন্ন বিষয়ে আমাদের পূর্ব বিরোধ চলে আসছে। গত ২৪ জানুয়ারি রবিবার বিকেল সাড়ে ৩টায় ছইফুল ইসলামের একটি বাছুর আমাদের সবজি ক্ষেতে ঢুকে ফসল নষ্ট করছিল। আমার পিতা বাছুরটিকে সেখান থেকে তাড়িয়ে দিলে ছইফুল তাকে গালাগাল করে। আমার ভাই হাবিবুর রহমান এর প্রতিবাদ করলে ছইফুল, কামরুল, বদরুল, আবদুস সালাম ও আসমা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আমাদের ঘরে প্রবেশ করে আমার মা, ভাইবোনদের উপর হামলা চালায়। এ সময় কামরুল আমার বোনের শ্লীলতাহানী করে। তাদের হামলায় আমার আমার মা, বোন ও ভাই হাবিবুর রহমান গুরুতর আহত হন।
এদিকে, মামলা দায়েরের পরদিন বুধবার (২০ জানুয়ারি) দুপুরে সিলেটের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-১ এ হাজির হয়ে ৫ আসামী জামিন আবেদন করেন। আদালতের বিচারক মাহবুবুর রহমান ৪জনের জামিন মঞ্জুর করে প্রধান আসামী ছইফুল ইসলামকে জেলহাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেন বাদীপক্ষের আইনজীবী বিশ্বনাথ ঘোষ।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

২৭শে জানুয়ারি প্রকাশিত সংবাদ শিরোনামের সংশোধনী

আপডেট সময় ১০:০৭:৩৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১

বিশ্বনাথে হত্যাচেষ্টা-শ্লীলতাহানির অভিযোগে মামলা, প্রধান আসামী দাঙ্গাবাজ ছয়ফুল জেলহাজতের পরিবর্তে বিশ্বনাথের সন্ত্রাসী ছইফুল জেল হাজতে’ নামক সংবাদ শিরোনাম করায় টাইম নিউজ ইউকে বিডি পরিবার আন্তরিক ভাবে দুঃখ প্রকাশ করছে। সহকারী সম্পাদকের মাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদটি সম্পাদকের দৃষ্টিগোচরে আসলে তা সংশোধন করা হয়। নিম্নে মূল সংবাদটি হুবহু দেয়া হলো।

বিশ্বনাথ (সিলেট) প্রতিনিধিঃ সিলেটের বিশ্বনাথ পৌরসভায় সবজি ক্ষেত থেকে বাছুর তাড়িয়ে দেওয়ায় একটি পরিবারের উপর হামলা ও পরিবারের এক মহিলা সদস্যের শ্লীলতাহানী করার অভিযোগে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের শিমুলতলা (নয়াবাড়ী) গ্রামের আবদুস সালামের ছেলে ছইফুল ইসলামকে (৩২) প্রধান আসামী করে ৫জনের বিরুদ্ধে মঙ্গলবার (২৬ জানুয়ারি) মামলাটি দায়ের করেন একই গ্রামের আবদুল আহাদের ছেলে ছাদিকুর রহমান সাজুল। মামলা নং-২৫। মামলার অন্য আসামীরা হলেন ছইফুল ইসলামের ভাই কামরুল ইসলাম (৩৬), বদরুল ইসলাম (৩৪), তাদের পিতা আবদুস সালাম ডুমাই (৬০), বোন আসমা বেগম (২১)।

মামলার এজাহারে ছাদিকুর রহমান সাজুল উল্লেখ করেন, অভিযুক্তরা অত্যন্ত উগ্র, দাঙ্গাবাজ ও লাঠিয়াল প্রকৃতির লোক। তাদের সাথে মামলা ও বিভিন্ন বিষয়ে আমাদের পূর্ব বিরোধ চলে আসছে। গত ২৪ জানুয়ারি রবিবার বিকেল সাড়ে ৩টায় ছইফুল ইসলামের একটি বাছুর আমাদের সবজি ক্ষেতে ঢুকে ফসল নষ্ট করছিল। আমার পিতা বাছুরটিকে সেখান থেকে তাড়িয়ে দিলে ছইফুল তাকে গালাগাল করে। আমার ভাই হাবিবুর রহমান এর প্রতিবাদ করলে ছইফুল, কামরুল, বদরুল, আবদুস সালাম ও আসমা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আমাদের ঘরে প্রবেশ করে আমার মা, ভাইবোনদের উপর হামলা চালায়। এ সময় কামরুল আমার বোনের শ্লীলতাহানী করে। তাদের হামলায় আমার আমার মা, বোন ও ভাই হাবিবুর রহমান গুরুতর আহত হন।
এদিকে, মামলা দায়েরের পরদিন বুধবার (২০ জানুয়ারি) দুপুরে সিলেটের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-১ এ হাজির হয়ে ৫ আসামী জামিন আবেদন করেন। আদালতের বিচারক মাহবুবুর রহমান ৪জনের জামিন মঞ্জুর করে প্রধান আসামী ছইফুল ইসলামকে জেলহাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেন বাদীপক্ষের আইনজীবী বিশ্বনাথ ঘোষ।