ঢাকা ০৬:৩৭ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ মে ২০২৪, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিশ্বনাথে বৃদ্ধ কৃষক হত্যার প্রতিবাদে সভা অনুষ্ঠিত।

বিশ্বনাথ সংবাদদাতাঃ সিলেটের বিশ্বনাথে ‘বৃদ্ধ কৃষক ছরকুম আলী দয়াল হত্যার প্রতিবাদে’ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার (২৯ জানুয়ারি) বিকেলে উপজেলার চাউলধনী হাওর ও কৃষক বাঁচাও আন্দোলন কমিটির উদ্যোগে চাউলধনী হাওরেই এই প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
আন্দোলন কমিটির আহ্বায়ক আবুল কালামের সভাপতিত্বে যুগ্ম আহ্বায়ক আবদুল আজিজের পরিচালনায় এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন আন্দোলন কমিটির প্রধান উপদেষ্টা ও বিশ্বনাথ উপজেলা পরিষদের সাবেক মুহিবুর রহমান। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ও দৌলতপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আমির আলী, দৌলতপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও আন্দোলন কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক আরিফ উল্লাহ সিতাব, শামসুদ্দিন প্রমুখ। শুরুতে ক্বোরআন তেলাওয়াত করেন ক্বারী ইউনুছ আলী বেলাল। প্রতিবাদ সভায় চাউলধনী হাওরপাড়ের শতশত কৃষক অংশ নেন।
সভায় বক্তারা বলেন, ‘চাউলধনী হাওরের ইজারাদার জলদস্যু সাইফুল আলম তার লোকজন নিয়ে গতকাল হাওরের মধ্যে বৃদ্ধ কৃষক ছরকুম আলী দয়ালকে হত্যা করেছে। অনতিবিলম্বে এই হত্যাকান্ডের মূল হোতা সাইফুলসহ সকল হত্যাকারীদেরকে গ্রেপ্তার করে দ্রুত আইনের আওতায় নিয়ে আসতে হবে। না হলে আগামীতে কঠোর আন্দোলনের ডাক দেয়া হবে।’
এদিকে, প্রতিবাদ সভা শেষে আসরের নামাজের পরপরই সভাস্থলে বৃদ্ধ কৃষক ছরকুম আলী দয়ালের জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা শেষে তার লাশ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। এর আগে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে লাশের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়।
প্রসঙ্গত, গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে পানি সেচকে কেন্দ্র করে বিশ্বনাথের চাউলধনী হাওরে দুই পক্ষের সংঘর্ষের সময় ছরকুম আলী দয়াল (৭০) নামে এক বৃদ্ধ কৃষকের মৃত্যু হয়। তিনি উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের চৈতননগর গ্রামের মৃত আছকর মামনের ছেলে। তার পরিবার দাবী করে, হাওরের ইজারাদার সাইফুল আলমের নেতৃত্বে দিলোয়ারসহ তার লোকজনের মারধরে ঘটনাস্থলেই তিনি নিহত হন। আর পুলিশ জানায়, তার (দয়াল) শরীরে আঘাতের কোনো চিহ্ন পাওয়া যায়নি। এ ঘটনায় উভয়পক্ষের ৩জনকে ঘটনাস্থল থেকেই পুলিশ আটক করে। শুক্রবার রাতে চাউলধনী হাওরের ইজারাদার সাইফুল আলমকে প্রধান অভিযুক্ত করে বিশ্বনাথ থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন কৃষক ছরকুম আলী দয়ালের ভাতিজা আহমদ আলী।

ট্যাগস

বিশ্বনাথে বৃদ্ধ কৃষক হত্যার প্রতিবাদে সভা অনুষ্ঠিত।

আপডেট সময় ০৩:৫৮:৫৮ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২১

বিশ্বনাথ সংবাদদাতাঃ সিলেটের বিশ্বনাথে ‘বৃদ্ধ কৃষক ছরকুম আলী দয়াল হত্যার প্রতিবাদে’ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার (২৯ জানুয়ারি) বিকেলে উপজেলার চাউলধনী হাওর ও কৃষক বাঁচাও আন্দোলন কমিটির উদ্যোগে চাউলধনী হাওরেই এই প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
আন্দোলন কমিটির আহ্বায়ক আবুল কালামের সভাপতিত্বে যুগ্ম আহ্বায়ক আবদুল আজিজের পরিচালনায় এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন আন্দোলন কমিটির প্রধান উপদেষ্টা ও বিশ্বনাথ উপজেলা পরিষদের সাবেক মুহিবুর রহমান। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ও দৌলতপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আমির আলী, দৌলতপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও আন্দোলন কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক আরিফ উল্লাহ সিতাব, শামসুদ্দিন প্রমুখ। শুরুতে ক্বোরআন তেলাওয়াত করেন ক্বারী ইউনুছ আলী বেলাল। প্রতিবাদ সভায় চাউলধনী হাওরপাড়ের শতশত কৃষক অংশ নেন।
সভায় বক্তারা বলেন, ‘চাউলধনী হাওরের ইজারাদার জলদস্যু সাইফুল আলম তার লোকজন নিয়ে গতকাল হাওরের মধ্যে বৃদ্ধ কৃষক ছরকুম আলী দয়ালকে হত্যা করেছে। অনতিবিলম্বে এই হত্যাকান্ডের মূল হোতা সাইফুলসহ সকল হত্যাকারীদেরকে গ্রেপ্তার করে দ্রুত আইনের আওতায় নিয়ে আসতে হবে। না হলে আগামীতে কঠোর আন্দোলনের ডাক দেয়া হবে।’
এদিকে, প্রতিবাদ সভা শেষে আসরের নামাজের পরপরই সভাস্থলে বৃদ্ধ কৃষক ছরকুম আলী দয়ালের জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা শেষে তার লাশ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। এর আগে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে লাশের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়।
প্রসঙ্গত, গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে পানি সেচকে কেন্দ্র করে বিশ্বনাথের চাউলধনী হাওরে দুই পক্ষের সংঘর্ষের সময় ছরকুম আলী দয়াল (৭০) নামে এক বৃদ্ধ কৃষকের মৃত্যু হয়। তিনি উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের চৈতননগর গ্রামের মৃত আছকর মামনের ছেলে। তার পরিবার দাবী করে, হাওরের ইজারাদার সাইফুল আলমের নেতৃত্বে দিলোয়ারসহ তার লোকজনের মারধরে ঘটনাস্থলেই তিনি নিহত হন। আর পুলিশ জানায়, তার (দয়াল) শরীরে আঘাতের কোনো চিহ্ন পাওয়া যায়নি। এ ঘটনায় উভয়পক্ষের ৩জনকে ঘটনাস্থল থেকেই পুলিশ আটক করে। শুক্রবার রাতে চাউলধনী হাওরের ইজারাদার সাইফুল আলমকে প্রধান অভিযুক্ত করে বিশ্বনাথ থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন কৃষক ছরকুম আলী দয়ালের ভাতিজা আহমদ আলী।