ঢাকা ১১:৫৬ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

যুক্তরাজ্যে দেখা দিচ্ছে এম্বুলেন্স ও আইসিইউ সংকট!

মহামারী করোনা ভাইরাসের নতুন স্ট্রেইন ধরা পড়ার পর থেকে
যুক্তরাজ্যে বিদ্যুৎ গতিতে বেড়েই চলেছে করোনার সংক্রমণ। রোগী বেড়ে যাওয়ায় হিমশিম খেতে হচ্ছে হাসপাতালের কর্মীদের। আর এতে হাসপাতালের বাইরে অ্যাম্বুলেন্সের রোগীদের হস্তান্তরে সময় বেশি লাগছে।
যুক্তরাজ্যের ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিস জানায়, গত সপ্তাহে যুক্তরাজ্যে ৫ হাজার ৫১৩ জন রোগী এক ঘণ্টার চেয়ে বেশি সময় হাসপাতালে প্রবেশের জন্য অপেক্ষা করেছে। এই সংখ্যা এর আগের চেয়ে সপ্তাহের চেয়ে প্রায় ২০০ জন বেশি।
এদিকে করোনা রোগী বাড়ার সাথেসাথে আইসিইউ সংকট বাড়ছে যুক্তরাজ্যজুড়ে। এ নিয়ে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন সতর্ক করে বলেন, আপনি যদি আমাকে জিজ্ঞাসা করেন কখন আইসিইউগুলোর ধারণ ক্ষমতা শেষ হবে তা আমি নির্দিষ্ট করতে বলতে পারবো না। তবে আমি বলতে পারি যে আমরা ঝুঁকিতে রয়েছি।
আন্তর্জাতিক জরিপকারী সংস্থা ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্য অনুযায়ী, যুক্তরাজ্যে এ পর্যন্ত ৩২ লাখ ১১ হাজার ৫৭৬ জন করোনা রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। দেশটিতে করোনায় মারা গেছেন ৮৪ হাজার ৭৬৭ জন।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

যুক্তরাজ্যে দেখা দিচ্ছে এম্বুলেন্স ও আইসিইউ সংকট!

আপডেট সময় ০৪:৪২:৫১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৫ জানুয়ারী ২০২১

মহামারী করোনা ভাইরাসের নতুন স্ট্রেইন ধরা পড়ার পর থেকে
যুক্তরাজ্যে বিদ্যুৎ গতিতে বেড়েই চলেছে করোনার সংক্রমণ। রোগী বেড়ে যাওয়ায় হিমশিম খেতে হচ্ছে হাসপাতালের কর্মীদের। আর এতে হাসপাতালের বাইরে অ্যাম্বুলেন্সের রোগীদের হস্তান্তরে সময় বেশি লাগছে।
যুক্তরাজ্যের ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিস জানায়, গত সপ্তাহে যুক্তরাজ্যে ৫ হাজার ৫১৩ জন রোগী এক ঘণ্টার চেয়ে বেশি সময় হাসপাতালে প্রবেশের জন্য অপেক্ষা করেছে। এই সংখ্যা এর আগের চেয়ে সপ্তাহের চেয়ে প্রায় ২০০ জন বেশি।
এদিকে করোনা রোগী বাড়ার সাথেসাথে আইসিইউ সংকট বাড়ছে যুক্তরাজ্যজুড়ে। এ নিয়ে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন সতর্ক করে বলেন, আপনি যদি আমাকে জিজ্ঞাসা করেন কখন আইসিইউগুলোর ধারণ ক্ষমতা শেষ হবে তা আমি নির্দিষ্ট করতে বলতে পারবো না। তবে আমি বলতে পারি যে আমরা ঝুঁকিতে রয়েছি।
আন্তর্জাতিক জরিপকারী সংস্থা ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্য অনুযায়ী, যুক্তরাজ্যে এ পর্যন্ত ৩২ লাখ ১১ হাজার ৫৭৬ জন করোনা রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। দেশটিতে করোনায় মারা গেছেন ৮৪ হাজার ৭৬৭ জন।