ঢাকা ০২:০১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যুক্তরাজ্যে অনুমোদন পেল অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন।

ডেস্ক রিপোর্টঃ বৈশ্বিক মহামারি মহামারি করোনা ভাইরাসের আক্রমনে পুরো ব্রিটেন যখন দিশেহারা তখন আশার আলো নিয়ে এলো অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার করোনাভাইরাসের টিকা ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে যুক্তরাজ্য। এনিয়ে ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি জানায়, অক্সফোর্ডের টিকার অনুমোদন পাওয়ার বিষয়টি যুক্তরাজ্যের জন্য একটি বেশ গুরুত্বপূর্ণ বিষয় বর্তমান সময়ের জন্য কেননা এর মধ্যদিয়ে করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়ার কর্মসূচির ব্যাপক সম্প্রসারণের সুযোগ তৈরি হলো যার লক্ষ্য হবে মানুষের জীবনকে যতটা সম্ভব স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে নিয়ে আসা।

অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার এই টিকার তিন কোটি ডোজ কিনতে ইতোমধ্যে সেরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া ও বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের সঙ্গে চুক্তি করেছে বাংলাদেশ।
আগামী জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারির মধ্যেই ওই টিকার প্রথম চালান দেশে পৌঁছে যাবে বলে এর আগে আশা প্রকাশ করেছিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।
বিবিসি আরো জানিয়েছে যুক্তরাজ্য অ্যাস্ট্রাজেনেকার কাছ থেকে ১০ কোটি ডোজ টিকা নিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে, যা দিয়ে ৫ কোটি মানুষকে টিকা দেওয়া যাবে।
যুক্তরাজ্য সরকার ডিসেম্বরের শুরুতে ফাইজার-বায়োএনটেকের টিকার অনুমোদন দেওয়ার পর সেখানে ইতোমধ্যে ছয় লাখ মানুষকে করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়া হয়েছে।
ফাইজার-বায়োএনটেক বা যুক্তরাষ্ট্রের কোম্পানি মডর্নার তৈরি টিকার তুলনায় অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা সংরক্ষণ, পরিবহন ও দেওয়া তুলনামূলকভাবে সহজ।
তাছাড়া দাম কম হওয়ায় এবং সহজে উৎপাদন করা যায় বলে অক্সফোর্ডের টিকা করোনাভাইরাসের টিকা দান কর্মসূচিতে অনেক বেশি গতি আনবে বলে গবেষকরা আশা করছেন।
অক্সফোর্ডের টিকা রেফ্রিজারেটরের সাধারণ তাপমাত্রাতেই সংরক্ষণ করা যায়; ফলে বিশ্বের যে কোনো প্রান্তে এই টিকা পৌঁছানো তুলনামূলক সহজ। তবে অন্যদিকে, ফাইজারের টিকা মাইনাস ৭০ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং মডার্নার টিকা মাইনাস ২০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় সংরক্ষণ করতে হয়, যা সাধারণ রেফ্রিজারেটরে সম্ভব নয়।
ফাইজারের মতো অক্সফোর্ডের টিকারও দু’টো করে ডোজ নিতে হবে। ফাইজারের ক্ষেত্রে দুই ডোজের মাঝে তিন সপ্তাহের বিরতি থাকে। অক্সফোর্ডের টিকার দুই ডোজ নিতে হবে চার সপ্তাহের ব্যবধানে।
আজ ত্রিশ ডিসেম্বর ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন করোনা ভাইরাসে করনীয় নির্ধারনে আবারও জাতির উদ্দেশ্য ভাষন দেবেন বলে জানাগেছে।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

যুক্তরাজ্যে অনুমোদন পেল অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন।

আপডেট সময় ০৭:৫৬:৫৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩০ ডিসেম্বর ২০২০

ডেস্ক রিপোর্টঃ বৈশ্বিক মহামারি মহামারি করোনা ভাইরাসের আক্রমনে পুরো ব্রিটেন যখন দিশেহারা তখন আশার আলো নিয়ে এলো অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার করোনাভাইরাসের টিকা ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে যুক্তরাজ্য। এনিয়ে ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি জানায়, অক্সফোর্ডের টিকার অনুমোদন পাওয়ার বিষয়টি যুক্তরাজ্যের জন্য একটি বেশ গুরুত্বপূর্ণ বিষয় বর্তমান সময়ের জন্য কেননা এর মধ্যদিয়ে করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়ার কর্মসূচির ব্যাপক সম্প্রসারণের সুযোগ তৈরি হলো যার লক্ষ্য হবে মানুষের জীবনকে যতটা সম্ভব স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে নিয়ে আসা।

অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার এই টিকার তিন কোটি ডোজ কিনতে ইতোমধ্যে সেরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া ও বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের সঙ্গে চুক্তি করেছে বাংলাদেশ।
আগামী জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারির মধ্যেই ওই টিকার প্রথম চালান দেশে পৌঁছে যাবে বলে এর আগে আশা প্রকাশ করেছিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।
বিবিসি আরো জানিয়েছে যুক্তরাজ্য অ্যাস্ট্রাজেনেকার কাছ থেকে ১০ কোটি ডোজ টিকা নিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে, যা দিয়ে ৫ কোটি মানুষকে টিকা দেওয়া যাবে।
যুক্তরাজ্য সরকার ডিসেম্বরের শুরুতে ফাইজার-বায়োএনটেকের টিকার অনুমোদন দেওয়ার পর সেখানে ইতোমধ্যে ছয় লাখ মানুষকে করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়া হয়েছে।
ফাইজার-বায়োএনটেক বা যুক্তরাষ্ট্রের কোম্পানি মডর্নার তৈরি টিকার তুলনায় অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা সংরক্ষণ, পরিবহন ও দেওয়া তুলনামূলকভাবে সহজ।
তাছাড়া দাম কম হওয়ায় এবং সহজে উৎপাদন করা যায় বলে অক্সফোর্ডের টিকা করোনাভাইরাসের টিকা দান কর্মসূচিতে অনেক বেশি গতি আনবে বলে গবেষকরা আশা করছেন।
অক্সফোর্ডের টিকা রেফ্রিজারেটরের সাধারণ তাপমাত্রাতেই সংরক্ষণ করা যায়; ফলে বিশ্বের যে কোনো প্রান্তে এই টিকা পৌঁছানো তুলনামূলক সহজ। তবে অন্যদিকে, ফাইজারের টিকা মাইনাস ৭০ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং মডার্নার টিকা মাইনাস ২০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় সংরক্ষণ করতে হয়, যা সাধারণ রেফ্রিজারেটরে সম্ভব নয়।
ফাইজারের মতো অক্সফোর্ডের টিকারও দু’টো করে ডোজ নিতে হবে। ফাইজারের ক্ষেত্রে দুই ডোজের মাঝে তিন সপ্তাহের বিরতি থাকে। অক্সফোর্ডের টিকার দুই ডোজ নিতে হবে চার সপ্তাহের ব্যবধানে।
আজ ত্রিশ ডিসেম্বর ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন করোনা ভাইরাসে করনীয় নির্ধারনে আবারও জাতির উদ্দেশ্য ভাষন দেবেন বলে জানাগেছে।