ঢাকা ১০:৩০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৮ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

যুক্তরাজ্যে বড়দিন পালনে ভ্রমন ও পারিবারিক সাক্ষাতে পাঁচদিনের শর্তসাপেক্ষে শিথিলতা।

ডেস্ক রিপোর্টঃ যুক্তরাজ্য সরকারের দেয়া ঘোষণা অনুযায়ী আগামী ২৩ থেকে ২৭ ডিসেম্বর পর্যন্ত এই পাঁচদিন ব্রিটেনের নাগরিকদের ভ্রমনে ও পরিবার পরিজনের সাথে সাক্ষাৎকারে কিছুটা শিথিলতা দেয়া হয়েছে। নাগরিকদের তাদের সবচেয়ে বড় ধর্মীও উৎসবটি পালন করতে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

একসাথে তিনটি পরিবারের সদস্যদের বাড়িতে একত্রিত হওয়ার এবং রাতে থাকার অনুমতি দেয়া হবে।
ব্রিটেনের প্রধান মেডিকেল অফিসার প্রফেসর ক্রিস হুইটি জানান এইবারের বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের কারনে বড়দিনের অনুষ্ঠান ছোট করে পানল করুন এবং এটিকে স্থানীয় পর্যায়ে রাখুন। এবং এর সাথে তিনি তুলনামূলক ভাবে যারা দুর্বল স্বাস্থ্যের অধিকারী তাদের কথা বিবেচনা জন্য আহ্বান জানিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলেছেন সবাইকে অবশ্যই স্বাস্থ্য বিধি মেনে নিজ নিজ দায়িত্ব ও নৈতিকতা দেখাতে হবে। স্বাস্থ্য বিভাগের সকল বিশেষজ্ঞদের বিশেষ সতর্কতা ও উদ্বেগ থাকা সত্ত্বেও ক্রিসমাসে করোনার নিয়ম শিথিল করে দেয়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন এবারের বড়দিন পালনের জন্য সর্বসাধারণের জন্য কিছু বিশেষ নীতিমালা নির্ধারণ করে দিয়েছেন আর সেগুলো হলো।
সকল জনসাধারণের জন্য সংক্ষিপ্ত ও ছোট পরিসরে ক্রিসমাস উদযাপনের আহ্বান জানানো হয়েছে।

অন্য পরিবারগুলোর মানুষদের সাথে দেখা করার অন্তত পক্ষে পাঁচ দিন পূর্বে মানুষের সাথে যোগাযোগ বন্ধ রাখুন তাহলে যাদের সাথে দেখা করবেন তাদের করোনা আক্রান্তের সম্ভবনা কম হবে।

বেশী ঝুকিপূর্ণ এলাকা অর্থাৎ টিয়ার সিষ্টেম তিন থেকে তুলনামূলক কম ঝুকিপূর্ণ এলাকা অর্থাৎ টিয়ার সিষ্টেম দুই এর এলাকাগুলোতে ভ্রমণ করা থেকে বিরত থাকুন।

যতটুকু সম্ভব আপনাদের নিজ নিজ এলাকায় থাকার চেষ্টা করুন এবং অন্য বাড়িতে রাত কাটানো থেকে বিরত থাকুন।
তুলনামূলক স্বাস্থ্য গতভাবে দুর্বল অর্থাৎ যারা আগের থেকে বিভিন্ন রগে আক্রান্ত এবং বয়স্ক তাদের সাথে সাক্ষাত এড়িয়ে চলার জন্য তিনি আহবান জানিয়েছেন। ব্রিটেন জুড়ে এই ভাইরাসের ভ্যাকসিন দেয়া শুরু হয়েছে তাই প্রধানমন্ত্রী সবাইকে ধৈর্য ধরে ভ্যাকসিনটি যতক্ষণ না পর্যন্ত সর্বসাধারণের জন্য না আসছে ততক্ষণ পর্যন্ত এই ধরনের স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার জন্য অনুরুধ জানিয়েছেন।

বড়দিনের পর বক্সিং ডে-তে যাতে জনসমাগম না করেন বা ভিড় এড়িয়ে চলেন এবং নববর্ষ উদযাপনেও যেন জনসমাগম এড়িয়ে চলেন সে জন্য সবাইকে অনুরুধ জানিয়েছেন।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

যুক্তরাজ্যে বড়দিন পালনে ভ্রমন ও পারিবারিক সাক্ষাতে পাঁচদিনের শর্তসাপেক্ষে শিথিলতা।

আপডেট সময় ০৪:৪২:০৩ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০২০

ডেস্ক রিপোর্টঃ যুক্তরাজ্য সরকারের দেয়া ঘোষণা অনুযায়ী আগামী ২৩ থেকে ২৭ ডিসেম্বর পর্যন্ত এই পাঁচদিন ব্রিটেনের নাগরিকদের ভ্রমনে ও পরিবার পরিজনের সাথে সাক্ষাৎকারে কিছুটা শিথিলতা দেয়া হয়েছে। নাগরিকদের তাদের সবচেয়ে বড় ধর্মীও উৎসবটি পালন করতে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

একসাথে তিনটি পরিবারের সদস্যদের বাড়িতে একত্রিত হওয়ার এবং রাতে থাকার অনুমতি দেয়া হবে।
ব্রিটেনের প্রধান মেডিকেল অফিসার প্রফেসর ক্রিস হুইটি জানান এইবারের বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের কারনে বড়দিনের অনুষ্ঠান ছোট করে পানল করুন এবং এটিকে স্থানীয় পর্যায়ে রাখুন। এবং এর সাথে তিনি তুলনামূলক ভাবে যারা দুর্বল স্বাস্থ্যের অধিকারী তাদের কথা বিবেচনা জন্য আহ্বান জানিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলেছেন সবাইকে অবশ্যই স্বাস্থ্য বিধি মেনে নিজ নিজ দায়িত্ব ও নৈতিকতা দেখাতে হবে। স্বাস্থ্য বিভাগের সকল বিশেষজ্ঞদের বিশেষ সতর্কতা ও উদ্বেগ থাকা সত্ত্বেও ক্রিসমাসে করোনার নিয়ম শিথিল করে দেয়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন এবারের বড়দিন পালনের জন্য সর্বসাধারণের জন্য কিছু বিশেষ নীতিমালা নির্ধারণ করে দিয়েছেন আর সেগুলো হলো।
সকল জনসাধারণের জন্য সংক্ষিপ্ত ও ছোট পরিসরে ক্রিসমাস উদযাপনের আহ্বান জানানো হয়েছে।

অন্য পরিবারগুলোর মানুষদের সাথে দেখা করার অন্তত পক্ষে পাঁচ দিন পূর্বে মানুষের সাথে যোগাযোগ বন্ধ রাখুন তাহলে যাদের সাথে দেখা করবেন তাদের করোনা আক্রান্তের সম্ভবনা কম হবে।

বেশী ঝুকিপূর্ণ এলাকা অর্থাৎ টিয়ার সিষ্টেম তিন থেকে তুলনামূলক কম ঝুকিপূর্ণ এলাকা অর্থাৎ টিয়ার সিষ্টেম দুই এর এলাকাগুলোতে ভ্রমণ করা থেকে বিরত থাকুন।

যতটুকু সম্ভব আপনাদের নিজ নিজ এলাকায় থাকার চেষ্টা করুন এবং অন্য বাড়িতে রাত কাটানো থেকে বিরত থাকুন।
তুলনামূলক স্বাস্থ্য গতভাবে দুর্বল অর্থাৎ যারা আগের থেকে বিভিন্ন রগে আক্রান্ত এবং বয়স্ক তাদের সাথে সাক্ষাত এড়িয়ে চলার জন্য তিনি আহবান জানিয়েছেন। ব্রিটেন জুড়ে এই ভাইরাসের ভ্যাকসিন দেয়া শুরু হয়েছে তাই প্রধানমন্ত্রী সবাইকে ধৈর্য ধরে ভ্যাকসিনটি যতক্ষণ না পর্যন্ত সর্বসাধারণের জন্য না আসছে ততক্ষণ পর্যন্ত এই ধরনের স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার জন্য অনুরুধ জানিয়েছেন।

বড়দিনের পর বক্সিং ডে-তে যাতে জনসমাগম না করেন বা ভিড় এড়িয়ে চলেন এবং নববর্ষ উদযাপনেও যেন জনসমাগম এড়িয়ে চলেন সে জন্য সবাইকে অনুরুধ জানিয়েছেন।