ঢাকা ১১:৪২ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বায়োনটেক-ফাইজার প্রথম ভ্যাকসিন নিলেন নব্বই বছরের মার্গারেট কিনান।

ডেস্ক রিপোর্টঃ বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে প্রথম সফলতা অর্জন করলো যুক্তরাজ্য। আজ মঙ্গলবার যুক্তরাজ্যের নব্বই বছরের একজন মহিলা মার্গারেট কিনান এই ভ্যাকসিন গ্রহন করেন।

আজ মঙ্গলবার থেকে বায়োনটেক-ফাইজার ভ্যাকসিন দিতে শুরু করেছে ব্রিটেন৷ প্রথম পর্যায়ে দেয়া হবে আট লক্ষ ডোজ৷ তবে প্রথম পর্বে সবাই পাবেন না৷ প্রথমে পাবেন যাদের বয়স ৮০-র উপরে ,অথবা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সামনের কাতার থেকে লড়েছেন যারা অর্থাৎ এনএইচএস এর ডাক্তার নার্সরা।
সুতরাং যারা খুব বেশি মৃত্যু ঝুঁকিতে আছেন তারা একটু স্বস্তি পাবেন। নিজের ৯১তম জন্মদিনের এক সপ্তাহ আগে সবার আগে সেই মুক্তির আস্বাদটা পেলেন মার্গারেট কিনান৷ ভোর ছয়টা ৩১ মিনিটে তাকে ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজটা দেয়ার পর থেকে খুব খুশি তিনি৷ ‘‘প্রথম ব্যক্তি হিসেবে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন পেয়ে নিজেকে খুব সৌভাগ্যবান আর সুবিধাভোগী মনে হচ্ছে৷ অনেকদিন পর নতুন বছরে আমার বন্ধু এবং পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে সময় কাটাতে পারবো ভেবে ভীষণ আনন্দ হচ্ছে৷ মনে হচ্ছে যেন একটু আগেই জন্মদিনের সেরা উপহারটা পেয়ে গেলাম৷’’
তবে ফাইজার এই ভ্যাকসিন সর্ব সাধারনের জন্য সহজলভ্য হতে অপেক্ষা করতে হবে আগামী বছর পর্যন্ত। ভ্যাকসিনটি প্রয়োগে শতভাগ সফলতা না আসলেও অনেকটা স্বস্তির নিঃশ্বাস নিচ্ছেন পুরো বৃটেন বাসী।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

বায়োনটেক-ফাইজার প্রথম ভ্যাকসিন নিলেন নব্বই বছরের মার্গারেট কিনান।

আপডেট সময় ০৪:০২:৩৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৯ ডিসেম্বর ২০২০

ডেস্ক রিপোর্টঃ বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে প্রথম সফলতা অর্জন করলো যুক্তরাজ্য। আজ মঙ্গলবার যুক্তরাজ্যের নব্বই বছরের একজন মহিলা মার্গারেট কিনান এই ভ্যাকসিন গ্রহন করেন।

আজ মঙ্গলবার থেকে বায়োনটেক-ফাইজার ভ্যাকসিন দিতে শুরু করেছে ব্রিটেন৷ প্রথম পর্যায়ে দেয়া হবে আট লক্ষ ডোজ৷ তবে প্রথম পর্বে সবাই পাবেন না৷ প্রথমে পাবেন যাদের বয়স ৮০-র উপরে ,অথবা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সামনের কাতার থেকে লড়েছেন যারা অর্থাৎ এনএইচএস এর ডাক্তার নার্সরা।
সুতরাং যারা খুব বেশি মৃত্যু ঝুঁকিতে আছেন তারা একটু স্বস্তি পাবেন। নিজের ৯১তম জন্মদিনের এক সপ্তাহ আগে সবার আগে সেই মুক্তির আস্বাদটা পেলেন মার্গারেট কিনান৷ ভোর ছয়টা ৩১ মিনিটে তাকে ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজটা দেয়ার পর থেকে খুব খুশি তিনি৷ ‘‘প্রথম ব্যক্তি হিসেবে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন পেয়ে নিজেকে খুব সৌভাগ্যবান আর সুবিধাভোগী মনে হচ্ছে৷ অনেকদিন পর নতুন বছরে আমার বন্ধু এবং পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে সময় কাটাতে পারবো ভেবে ভীষণ আনন্দ হচ্ছে৷ মনে হচ্ছে যেন একটু আগেই জন্মদিনের সেরা উপহারটা পেয়ে গেলাম৷’’
তবে ফাইজার এই ভ্যাকসিন সর্ব সাধারনের জন্য সহজলভ্য হতে অপেক্ষা করতে হবে আগামী বছর পর্যন্ত। ভ্যাকসিনটি প্রয়োগে শতভাগ সফলতা না আসলেও অনেকটা স্বস্তির নিঃশ্বাস নিচ্ছেন পুরো বৃটেন বাসী।