ঢাকা ১১:৪৮ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বয়স্ক ও প্রতিবন্ধী ভাতা আত্মসাতের অভিযোগ!

বিশ্বনাথ প্রতিনিধিঃ সিলেটের বিশ্বনাথে আবুল কালাম নামে এক ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে বয়স্ক ও প্রতিবন্ধী ভাতার টাকা আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। তিনি উপজেলার লামাকাজী ইউনিয়ন পরিষদের ২নং ওয়ার্ডের সদস্য। মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বর্ণালী পালের কাছে ভাতার টাকা আত্মসাতের অভিযোগে দুটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ওই ওয়ার্ডের দুই ভুক্তভোগী। তারা হলেন স্থানীয় মির্জারগাঁও গ্রামের মৃত মোবারক আলীর ছেলে আবদুল কাদির ও আশাব উদ্দিনের মেয়ে শীমা বেগম।

লিখিত অভিযোগে আবদুল কাদির উল্লেখ করেন, অনেক কষ্ট ও চেষ্টার পর গতবছর আমি বয়স্ক ভাতার কার্ড পাই। গত ১৩ অক্টোবর আমার জুলাই ২০১৯ হতে জুন ২০২০ অর্থবছরের বয়স্ক ভাতার ৬ হাজার টাকা ব্যাংক থেকে উত্তোলন করে ব্যাংকের নীচে আসতেই আমার ওয়ার্ডের সদস্য আবুল কালাম আমাকে নির্যাতন করে ৬ হাজার টাকা ও ভাতা বই নিয়ে নেন। পরে আমাকে ২ হাজার টাকা ফেরত দেন। ৪ হাজার টাকা নেয়ার কারণ জানতে চাইলে কালাম আমাকে জানান, বয়স্ক ভাতার বই করে দিতে তার ৪ হাজার টাকা খরচ হয়েছে।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

বয়স্ক ও প্রতিবন্ধী ভাতা আত্মসাতের অভিযোগ!

আপডেট সময় ১১:৫০:২৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০

বিশ্বনাথ প্রতিনিধিঃ সিলেটের বিশ্বনাথে আবুল কালাম নামে এক ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে বয়স্ক ও প্রতিবন্ধী ভাতার টাকা আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। তিনি উপজেলার লামাকাজী ইউনিয়ন পরিষদের ২নং ওয়ার্ডের সদস্য। মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বর্ণালী পালের কাছে ভাতার টাকা আত্মসাতের অভিযোগে দুটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ওই ওয়ার্ডের দুই ভুক্তভোগী। তারা হলেন স্থানীয় মির্জারগাঁও গ্রামের মৃত মোবারক আলীর ছেলে আবদুল কাদির ও আশাব উদ্দিনের মেয়ে শীমা বেগম।

লিখিত অভিযোগে আবদুল কাদির উল্লেখ করেন, অনেক কষ্ট ও চেষ্টার পর গতবছর আমি বয়স্ক ভাতার কার্ড পাই। গত ১৩ অক্টোবর আমার জুলাই ২০১৯ হতে জুন ২০২০ অর্থবছরের বয়স্ক ভাতার ৬ হাজার টাকা ব্যাংক থেকে উত্তোলন করে ব্যাংকের নীচে আসতেই আমার ওয়ার্ডের সদস্য আবুল কালাম আমাকে নির্যাতন করে ৬ হাজার টাকা ও ভাতা বই নিয়ে নেন। পরে আমাকে ২ হাজার টাকা ফেরত দেন। ৪ হাজার টাকা নেয়ার কারণ জানতে চাইলে কালাম আমাকে জানান, বয়স্ক ভাতার বই করে দিতে তার ৪ হাজার টাকা খরচ হয়েছে।