ঢাকা ১০:২৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ মে ২০২৪, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যশোরের মেয়ে ফারহানা বধু বেশে কন্যা হয়ে মোটরসাইকেল চালিয়ে করলেন বিয়ে!

ডেস্ক রিপোর্টঃ  বাংলাদেশী এক মেয়ে যার গায়ে হলুদের দিনে শহরজুড়ে বন্ধু-বান্ধব ও সাথীদের নিয়ে হৈ-হুল্লোড় আর বাইক র‌্যালি অর্থাৎ মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা করলেন। বাংলাদেশে এই প্রথম এধরনের ব্যতিক্রমী এ আয়োজন করে ফেসবুকে ভাইরাল হলেন যশোরের মেয়ে ফারহানা আফরোজ। গত ১৩ আগস্ট গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান ঘিরে এমন আয়োজন করেন ফারহানা।

ফারহানা জানান, নিজের বিয়েটাকে স্বরণীয় ও সবার থেকে আলাদা একটি কিছু করতেই এই আয়োজন তাই সবাই নেচেগেয়ে উদযাপন করেছি গায়ে হলুদের অনুষ্ঠানটি। আমি যেহেতু বাইক চালাতে পারি তাই বাইক চালিয়ে অনুষ্ঠান করেছি। ব্যতিক্রমী কিছু করার ভাবনা থেকেই এমন আয়োজন। এটি আমার নিজস্ব উদ্যোগে করেছি। অনেক আনন্দ করেছি বন্ধু-বান্ধব ও সাথীরা।
ফারহানা আফরোজের বাড়ি যশোর সার্কিট হাউজের সামনে।তিনি জানালেন, ২০০৭ সাল থেকে বাইক চালান তিনি। বিয়ের অনুষ্ঠানকে ব্যতিক্রমী করতে ভিন্নধর্মী ভাবনা তার মাথায় ছিল। এই ভাবনা থেকেই তিনি এমন আয়োজন করেছেন। বিয়ে, গায়ে হলুদের অনুষ্ঠানে সবাই নেচেগেয়ে উৎসব করেছেন। আমি যেহেতু বাইক চালাতে পারি; তাই বাইক চালিয়েই গায়ে হলুদ ও বিয়ের অনুষ্ঠানে এন্ট্রি দেয়ার পরিকল্পনা করেছি।
গত ১৩ আগস্ট ছিল ফারহানার গায়ে হলুদ। পরদিন ১৪ আগস্ট বিয়ে। ছেলে হাসনাইন রাফি পাবনার কাশিনাথপুরের বাসিন্দা। টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার হাসনাইন রাফি ঢাকার গাজীপুরে কর্মরত।
এ বিয়ের অনুষ্ঠান ক্যামেরায় ধারণ করা নাহরুল হায়াত তরু জানালেন, তিনি দীর্ঘদিন ধরেই ক্যামেরায় কাজ করছেন। কিন্তু এমন ব্যতিক্রমী বিয়ে-গায়ে হলুদের আয়োজন দেখেননি। এই গায়ে হলুদের ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ায় অনেকেই তার কাছে ফোন করছেন।

ট্যাগস

যশোরের মেয়ে ফারহানা বধু বেশে কন্যা হয়ে মোটরসাইকেল চালিয়ে করলেন বিয়ে!

আপডেট সময় ০১:২৭:১৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ অগাস্ট ২০২০

ডেস্ক রিপোর্টঃ  বাংলাদেশী এক মেয়ে যার গায়ে হলুদের দিনে শহরজুড়ে বন্ধু-বান্ধব ও সাথীদের নিয়ে হৈ-হুল্লোড় আর বাইক র‌্যালি অর্থাৎ মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা করলেন। বাংলাদেশে এই প্রথম এধরনের ব্যতিক্রমী এ আয়োজন করে ফেসবুকে ভাইরাল হলেন যশোরের মেয়ে ফারহানা আফরোজ। গত ১৩ আগস্ট গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান ঘিরে এমন আয়োজন করেন ফারহানা।

ফারহানা জানান, নিজের বিয়েটাকে স্বরণীয় ও সবার থেকে আলাদা একটি কিছু করতেই এই আয়োজন তাই সবাই নেচেগেয়ে উদযাপন করেছি গায়ে হলুদের অনুষ্ঠানটি। আমি যেহেতু বাইক চালাতে পারি তাই বাইক চালিয়ে অনুষ্ঠান করেছি। ব্যতিক্রমী কিছু করার ভাবনা থেকেই এমন আয়োজন। এটি আমার নিজস্ব উদ্যোগে করেছি। অনেক আনন্দ করেছি বন্ধু-বান্ধব ও সাথীরা।
ফারহানা আফরোজের বাড়ি যশোর সার্কিট হাউজের সামনে।তিনি জানালেন, ২০০৭ সাল থেকে বাইক চালান তিনি। বিয়ের অনুষ্ঠানকে ব্যতিক্রমী করতে ভিন্নধর্মী ভাবনা তার মাথায় ছিল। এই ভাবনা থেকেই তিনি এমন আয়োজন করেছেন। বিয়ে, গায়ে হলুদের অনুষ্ঠানে সবাই নেচেগেয়ে উৎসব করেছেন। আমি যেহেতু বাইক চালাতে পারি; তাই বাইক চালিয়েই গায়ে হলুদ ও বিয়ের অনুষ্ঠানে এন্ট্রি দেয়ার পরিকল্পনা করেছি।
গত ১৩ আগস্ট ছিল ফারহানার গায়ে হলুদ। পরদিন ১৪ আগস্ট বিয়ে। ছেলে হাসনাইন রাফি পাবনার কাশিনাথপুরের বাসিন্দা। টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার হাসনাইন রাফি ঢাকার গাজীপুরে কর্মরত।
এ বিয়ের অনুষ্ঠান ক্যামেরায় ধারণ করা নাহরুল হায়াত তরু জানালেন, তিনি দীর্ঘদিন ধরেই ক্যামেরায় কাজ করছেন। কিন্তু এমন ব্যতিক্রমী বিয়ে-গায়ে হলুদের আয়োজন দেখেননি। এই গায়ে হলুদের ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ায় অনেকেই তার কাছে ফোন করছেন।