ঢাকা ০১:৪৮ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

করোনা কালীন এই অনিশ্চয়তার মধ্যে ও প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্সে আবারও রেকর্ড।

ডেস্ক নিউজঃ বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের কারনে যখন সারা বিশ্ব বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে সাথে সাথে বাংলাদেশও অনেক প্রবাসী বাংলাদেশি দের নেই কাজকর্ম অনেকেই অনাহারে অর্ধাহারে থেকেছেন কবে ফিরবেন কাজে নেই কোনো নিশ্চয়তা এরপরও প্রিয় মানুষদের জন্য তারা ঠিকই পাঠিয়েছেন টাকা এই পরিস্থিতির মধ্যেই প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্সে রেকর্ডের পর রেকর্ড ভাঙতে শুরু করেছে। শুধু গত মাসেই একক একটি মাস হিসেবে প্রবাসীরা দেশে ২৫৯ কোটি ৯৫ লাখ মার্কিন ডলারের সর্বোচ্চ রেকর্ড রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন যা অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে।
ফলে গত ৩০ জুলাই পর্যন্ত বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বেড়ে তিন হাজার ৭২৯ কোটি ডলার দাঁড়িয়েছে। যা বাংলাদেশি মুদ্রায় তিন লাখ ১৬ হাজার ২০৪ কোটি টাকা।
সোমবার বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক কাজী ছাইদুর রহমান গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

বাংলাদেশ সরকারের অর্থনীতির চাকা সচল করতে প্রবাসীদের এই রেমিট্যান্স অন্যতম ভুমিকা পালন করে প্রতিবছরই মোটা অংকের রেমিট্যান্স পাঠান বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অবস্থানকারী প্রবাসী বাংলাদেশিরা। বিশেষ করে মুসলমানদের ধর্মীও উৎসব দুটি ঈদ উপলক্ষে পরিবার পরিজনের জন্য বিপুল পরিমাণ অর্থ পাঠান প্রবাসীরা সাথে সাথে দেশের বিভিন্ন সংকট যেমন প্রকৃতিক দূর্যোগ বন্যা মহামারীতেও।
বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্যমতে, জুলাইয়েই ২৫৯ কোটি ৯৫ লাখ ডলার রেমিট্যান্স এসেছে প্রবাস থেকে একক মাস হিসেবে এটি বাংলাদেশের ইতিহাসে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স আহরণ হয়েছে। এর আগে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স এসেছিল চলতি বছরেরই জুনে। ওই মাসে ১৮৩ কোটি ৩০ লাখ ডলার রেমিট্যান্স এসেছিল।
বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য আরও বলছে, গেল অর্থবছরে (২০১৯-২০) মোট এক হাজার ৮২০ কোটি ৪৯ লাখ ডলার সমপরিমাণ অর্থ পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। যা বাংলাদেশি মুদ্রায় (প্রতি ডলার ৮৫ টাকা ধরে) এক লাখ ৫৪ হাজার ৭৪২ কোটি টাকা। দেশের ইতিহাসে এর আগে কোনো অর্থবছরে এত অর্থ আসেনি।
এই রেমিট্যান্স যোদ্ধা প্রবাসী বাংলাদেশিরা যেখানেই থাকুক ভালো থাকুক।

ট্যাগস

করোনা কালীন এই অনিশ্চয়তার মধ্যে ও প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্সে আবারও রেকর্ড।

আপডেট সময় ০৩:৪৩:৩৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ অগাস্ট ২০২০

ডেস্ক নিউজঃ বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের কারনে যখন সারা বিশ্ব বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে সাথে সাথে বাংলাদেশও অনেক প্রবাসী বাংলাদেশি দের নেই কাজকর্ম অনেকেই অনাহারে অর্ধাহারে থেকেছেন কবে ফিরবেন কাজে নেই কোনো নিশ্চয়তা এরপরও প্রিয় মানুষদের জন্য তারা ঠিকই পাঠিয়েছেন টাকা এই পরিস্থিতির মধ্যেই প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্সে রেকর্ডের পর রেকর্ড ভাঙতে শুরু করেছে। শুধু গত মাসেই একক একটি মাস হিসেবে প্রবাসীরা দেশে ২৫৯ কোটি ৯৫ লাখ মার্কিন ডলারের সর্বোচ্চ রেকর্ড রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন যা অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে।
ফলে গত ৩০ জুলাই পর্যন্ত বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বেড়ে তিন হাজার ৭২৯ কোটি ডলার দাঁড়িয়েছে। যা বাংলাদেশি মুদ্রায় তিন লাখ ১৬ হাজার ২০৪ কোটি টাকা।
সোমবার বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক কাজী ছাইদুর রহমান গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

বাংলাদেশ সরকারের অর্থনীতির চাকা সচল করতে প্রবাসীদের এই রেমিট্যান্স অন্যতম ভুমিকা পালন করে প্রতিবছরই মোটা অংকের রেমিট্যান্স পাঠান বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অবস্থানকারী প্রবাসী বাংলাদেশিরা। বিশেষ করে মুসলমানদের ধর্মীও উৎসব দুটি ঈদ উপলক্ষে পরিবার পরিজনের জন্য বিপুল পরিমাণ অর্থ পাঠান প্রবাসীরা সাথে সাথে দেশের বিভিন্ন সংকট যেমন প্রকৃতিক দূর্যোগ বন্যা মহামারীতেও।
বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্যমতে, জুলাইয়েই ২৫৯ কোটি ৯৫ লাখ ডলার রেমিট্যান্স এসেছে প্রবাস থেকে একক মাস হিসেবে এটি বাংলাদেশের ইতিহাসে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স আহরণ হয়েছে। এর আগে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স এসেছিল চলতি বছরেরই জুনে। ওই মাসে ১৮৩ কোটি ৩০ লাখ ডলার রেমিট্যান্স এসেছিল।
বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য আরও বলছে, গেল অর্থবছরে (২০১৯-২০) মোট এক হাজার ৮২০ কোটি ৪৯ লাখ ডলার সমপরিমাণ অর্থ পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। যা বাংলাদেশি মুদ্রায় (প্রতি ডলার ৮৫ টাকা ধরে) এক লাখ ৫৪ হাজার ৭৪২ কোটি টাকা। দেশের ইতিহাসে এর আগে কোনো অর্থবছরে এত অর্থ আসেনি।
এই রেমিট্যান্স যোদ্ধা প্রবাসী বাংলাদেশিরা যেখানেই থাকুক ভালো থাকুক।