ঢাকা ০৬:৩০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ মে ২০২৪, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রতিবন্ধীদের উপর হামলা, আটককৃতদের মধ্যে চারজন জেল হাজতে।

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ  সিলেটের বিশ্বনাথে রাস্তা খোলে দিতে পঞ্চায়েতের কাছে বলায় প্রতিপক্ষের হামলায় প্রতিবন্ধি পরিবারের উপর হামলা করা হয়েছে। এতে মধ্যস্ততাকারীসহ ৪জন আহত হয়েছেন। শুক্রবার বিকেলে উপজেলার মনোহরপুর গ্রামের আখতার মিয়া গংরা প্রতিবন্ধি আব্দুস ছত্তারের পরিবারের উপর এ হামলা করেন। হামলায় গুরুতর আহত অবস্থায় শারীরিক প্রতিবন্ধি আব্দুস ছত্তারকে সিলেট ওসমানী হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করা হয়েছে। বর্তমানে তার (ছত্তার) অবস্থা খুবই সঙ্কটনাপন্ন রয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে। এঘটনায় প্রতিবন্ধি আব্দুস ছত্তারের স্ত্রী মোছা. রওসন আরা বাদী হয়ে শুক্রবার রাতে ১১জনকে আসামী করে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।
এরআগে শক্রবার বিকেলে উপজেলার রামপাশা ইউনিয়নের মনোহরপুর গ্রামের প্রতিবন্ধী আব্দুস ছাত্তার পক্ষের উপর হামলা করেন তারই চাচাতোভাই আখতার মিয়া গংরা। হামলায় প্রতিবন্ধী আব্দুস ছাত্তার গুরুতর আহত হলে তাকে সিলেট ওসমানী হাসপতালের আইসিইউতে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় অন্যান্যদের মধ্যে আহত প্রতিবন্ধী আব্দুস ছাত্তারের ছোটভাই শারীরিক প্রতিবন্ধী নেছার মিয়া ও লিটন মিয়া এবং মধ্যস্ততাকারী একই গ্রামের হয়াজ মিয়া। হামলার খবর পেয়ে থানা পুলিশের এসআই দেবাশীষ শর্ম্মাসহ একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে বন্ধ করা রাস্তা খোলে দেন। এসময় ঘটনাস্থল থেকে ৫জনকে জিাজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেন।
মামলা তদন্তকারী অফিসার (আইও) থানার এসআই অলক দাশ জানান, প্রতিবন্ধি আব্দুস ছত্তারের মাথার নার্ভে সমস্যা হওয়ায় তাকে আইসিইউতে নিবিড় পর্যবেক্ষণে আছেন। আটকৃতদের মধ্যে শনিবার দুপুরে আখতার মিয়া ও স্ত্রী সেলি বেগম, রফিক মিয়া, সাকিব মিয়া এই চারজনকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।
স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, পৈর্তৃক সম্পত্তি ও বাড়ির রাস্তা নিয়ে মনোহরপুর গ্রামের মৃত ইন্তাজ আলীর ছেলে আব্দুস সত্তার ও মৃত ইর্শ্বাদ আলীর ছেলে আখতার মিয়ার মধ্যে দীর্ঘ দিনের বিরোধ রয়েছে। সম্প্রতি বাড়ির মধ্যখানে দেওয়াল নির্মাণ করে প্রতিবন্ধী চাচাতো ভাইদের উঠান দিয়ে যাতায়াত বন্ধ করে দেন আখতার। এরপর বাড়ির রাস্তায় বাশের বেড়া দিয়ে চলাচল একেবারে বন্ধ করে দেন আখতার। আর রাস্তা বন্ধ করায় অন্য পথে শুক্রবার গ্রামের মসজিদে নামাজ পড়তে যান আব্দুস সত্তার। নামাজ শেষে উপস্থিত পঞ্চায়েতকে এ বিষয়টি জানান তিনি। আর পঞ্চায়েতকে জানানোর কারণে ওইদিন বিকেলে আব্দুস ছাত্তার পক্ষের উপর হামলা করেন আখতার গংরা।
ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বিশ্বনাথ থানার ওসি শামীম মুসা বলেন, এঘটনায় মামলা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা ৫জনের মধ্যে ১জনের সম্পৃক্ততা না পাওয়ায় তাকে ছাড়া অন্য চারজনকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। বাকীদের গ্রেপ্তারী অভিযান চলছে।

ট্যাগস

প্রতিবন্ধীদের উপর হামলা, আটককৃতদের মধ্যে চারজন জেল হাজতে।

আপডেট সময় ০৪:৫২:১৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ জুলাই ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ  সিলেটের বিশ্বনাথে রাস্তা খোলে দিতে পঞ্চায়েতের কাছে বলায় প্রতিপক্ষের হামলায় প্রতিবন্ধি পরিবারের উপর হামলা করা হয়েছে। এতে মধ্যস্ততাকারীসহ ৪জন আহত হয়েছেন। শুক্রবার বিকেলে উপজেলার মনোহরপুর গ্রামের আখতার মিয়া গংরা প্রতিবন্ধি আব্দুস ছত্তারের পরিবারের উপর এ হামলা করেন। হামলায় গুরুতর আহত অবস্থায় শারীরিক প্রতিবন্ধি আব্দুস ছত্তারকে সিলেট ওসমানী হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করা হয়েছে। বর্তমানে তার (ছত্তার) অবস্থা খুবই সঙ্কটনাপন্ন রয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে। এঘটনায় প্রতিবন্ধি আব্দুস ছত্তারের স্ত্রী মোছা. রওসন আরা বাদী হয়ে শুক্রবার রাতে ১১জনকে আসামী করে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।
এরআগে শক্রবার বিকেলে উপজেলার রামপাশা ইউনিয়নের মনোহরপুর গ্রামের প্রতিবন্ধী আব্দুস ছাত্তার পক্ষের উপর হামলা করেন তারই চাচাতোভাই আখতার মিয়া গংরা। হামলায় প্রতিবন্ধী আব্দুস ছাত্তার গুরুতর আহত হলে তাকে সিলেট ওসমানী হাসপতালের আইসিইউতে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় অন্যান্যদের মধ্যে আহত প্রতিবন্ধী আব্দুস ছাত্তারের ছোটভাই শারীরিক প্রতিবন্ধী নেছার মিয়া ও লিটন মিয়া এবং মধ্যস্ততাকারী একই গ্রামের হয়াজ মিয়া। হামলার খবর পেয়ে থানা পুলিশের এসআই দেবাশীষ শর্ম্মাসহ একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে বন্ধ করা রাস্তা খোলে দেন। এসময় ঘটনাস্থল থেকে ৫জনকে জিাজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেন।
মামলা তদন্তকারী অফিসার (আইও) থানার এসআই অলক দাশ জানান, প্রতিবন্ধি আব্দুস ছত্তারের মাথার নার্ভে সমস্যা হওয়ায় তাকে আইসিইউতে নিবিড় পর্যবেক্ষণে আছেন। আটকৃতদের মধ্যে শনিবার দুপুরে আখতার মিয়া ও স্ত্রী সেলি বেগম, রফিক মিয়া, সাকিব মিয়া এই চারজনকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।
স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, পৈর্তৃক সম্পত্তি ও বাড়ির রাস্তা নিয়ে মনোহরপুর গ্রামের মৃত ইন্তাজ আলীর ছেলে আব্দুস সত্তার ও মৃত ইর্শ্বাদ আলীর ছেলে আখতার মিয়ার মধ্যে দীর্ঘ দিনের বিরোধ রয়েছে। সম্প্রতি বাড়ির মধ্যখানে দেওয়াল নির্মাণ করে প্রতিবন্ধী চাচাতো ভাইদের উঠান দিয়ে যাতায়াত বন্ধ করে দেন আখতার। এরপর বাড়ির রাস্তায় বাশের বেড়া দিয়ে চলাচল একেবারে বন্ধ করে দেন আখতার। আর রাস্তা বন্ধ করায় অন্য পথে শুক্রবার গ্রামের মসজিদে নামাজ পড়তে যান আব্দুস সত্তার। নামাজ শেষে উপস্থিত পঞ্চায়েতকে এ বিষয়টি জানান তিনি। আর পঞ্চায়েতকে জানানোর কারণে ওইদিন বিকেলে আব্দুস ছাত্তার পক্ষের উপর হামলা করেন আখতার গংরা।
ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বিশ্বনাথ থানার ওসি শামীম মুসা বলেন, এঘটনায় মামলা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা ৫জনের মধ্যে ১জনের সম্পৃক্ততা না পাওয়ায় তাকে ছাড়া অন্য চারজনকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। বাকীদের গ্রেপ্তারী অভিযান চলছে।