ঢাকা ১০:৩৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইংল্যান্ডের দোকানগুলোতে মাস্ক পরিধান না করলে গুনতে হবে একশো পাউন্ড জরিমানা।

ডেস্ক নিউজঃ  শতাব্দীর ভয়ংকরতম বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাস (কোভিড নাইন্টিন) এর কারনে বৃটেন লকডাউনে ছিলো প্রায় তিন মাসের ও বেশী সময়। অর্থনীতি ও শিক্ষা ব্যবস্থা কে সচল করতে দৈন্যন্দিন জীবনে করোনা’কে সঙ্গী ও সাধন করে জীবনযুদ্ধে আবারও মাটে যেতে ডাক দিলেন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। তবে মানতে হবে তার নীতিমালা নয়তো গুনতে হবে জরিমানা।
আগামী ২৪ শে জুলাই থেকে ইংল্যান্ডের সবগুলো ছোট-বড় দোকানগুলোতে মাস্ক পরিধান বাধ্যতামূলক করতে যাচ্ছে বৃটেন সরকার।
আগামী ২৪শে জুলাই থেকে পুলিশ মাস্ক বিহীন অবস্থায় কাউকে শপিংয়ে দেখতে পেলেই হাতে ধরিয়ে দিবে একশো পাউন্ডের জরিমানা তবে তা দুই সপ্তাহের ভেতরে পরিশোধ করলে পঞ্চাশ পারসেন্ট ডিসকাউন্ট হয়ে পঞ্চাশ পাউন্ড পরিশোধযোগ্য থাকবে।
আজ বৃটিশ স্বাস্থমন্ত্রী ম্যাট হ্যানকক এই আইনের ঘোষনা করবেন বলে জানা গেছে।
প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলেন আমরা পর্যবেক্ষণ করতে পারছি যে জনগণ স্বাস্থ্যবিধি কে আমলে নিচ্ছেন না আমরা চাই না ভয়ংকরী এই ভাইরাস এটি তার পূর্বের শক্তিতে ফিরে আসুক আর তাই আমরা আমাদের এই আইনকে আরো কঠোর করতে যাচ্ছি আশাকরি জনগণ বিষয়টি গুরুত্বসহকারে নিবেন।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

ইংল্যান্ডের দোকানগুলোতে মাস্ক পরিধান না করলে গুনতে হবে একশো পাউন্ড জরিমানা।

আপডেট সময় ০১:৫৯:৪১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৪ জুলাই ২০২০

ডেস্ক নিউজঃ  শতাব্দীর ভয়ংকরতম বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাস (কোভিড নাইন্টিন) এর কারনে বৃটেন লকডাউনে ছিলো প্রায় তিন মাসের ও বেশী সময়। অর্থনীতি ও শিক্ষা ব্যবস্থা কে সচল করতে দৈন্যন্দিন জীবনে করোনা’কে সঙ্গী ও সাধন করে জীবনযুদ্ধে আবারও মাটে যেতে ডাক দিলেন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। তবে মানতে হবে তার নীতিমালা নয়তো গুনতে হবে জরিমানা।
আগামী ২৪ শে জুলাই থেকে ইংল্যান্ডের সবগুলো ছোট-বড় দোকানগুলোতে মাস্ক পরিধান বাধ্যতামূলক করতে যাচ্ছে বৃটেন সরকার।
আগামী ২৪শে জুলাই থেকে পুলিশ মাস্ক বিহীন অবস্থায় কাউকে শপিংয়ে দেখতে পেলেই হাতে ধরিয়ে দিবে একশো পাউন্ডের জরিমানা তবে তা দুই সপ্তাহের ভেতরে পরিশোধ করলে পঞ্চাশ পারসেন্ট ডিসকাউন্ট হয়ে পঞ্চাশ পাউন্ড পরিশোধযোগ্য থাকবে।
আজ বৃটিশ স্বাস্থমন্ত্রী ম্যাট হ্যানকক এই আইনের ঘোষনা করবেন বলে জানা গেছে।
প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলেন আমরা পর্যবেক্ষণ করতে পারছি যে জনগণ স্বাস্থ্যবিধি কে আমলে নিচ্ছেন না আমরা চাই না ভয়ংকরী এই ভাইরাস এটি তার পূর্বের শক্তিতে ফিরে আসুক আর তাই আমরা আমাদের এই আইনকে আরো কঠোর করতে যাচ্ছি আশাকরি জনগণ বিষয়টি গুরুত্বসহকারে নিবেন।