ঢাকা ০৬:২১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ মে ২০২৪, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দেশের জনপ্রিয় ডাক্তার দম্পতি অধ্যাপক মামুন আল মাহতাব ও নুজহাত চৌধুরী করোনা মুক্ত।

বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাস থেকে মুক্তি পেলেন দেশের সেরা মেডিকেল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালের চিকিৎসক দম্পতি অধ্যাপক মামুন আল মাহতাব স্বপ্নীল ও নুজহাত চৌধুর।।

ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর ডাক্তার এই দম্পতির জন্য দেশের বিভিন্ন ধর্মীয় উপসনালয়ে দোয়া, মোনাজাত ও প্রার্থনা করা হয়। অধ্যাপক মামুন আল মাহতাব ও তার স্ত্রী দু’জনেই এই প্রানঘাতী করোনা ভাইরাসের আক্রমন থেকে কিভাবে দেশবাসীকে সচেতন করা যায় এবং কিভাবে সচেতন থাকা যায় এ নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যম সহ সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে উপদেশ দিয়েছেন এবং দিয়ে যাচ্ছেন। অধ্যাপক মামুন আল মাহতাব স্বপ্নীল গত ১৩ জুন ও তাঁর স্ত্রী সহকারী অধ্যাপক নুজহাত চৌধুরী এবং অষ্টম শ্রেণি পড়ুয়া ছেলে গত ১৪ জুন নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন। করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর, তারা নিজ বাসাতেই অবস্থান করছিলেন। একসময়ের সাবেক তুখোড় ছাত্রনেতা অধ্যাপক মামুন আল মাহতাব একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি সহ বিভিন্ন সংঘটনের গুরুত্বপূর্ণ দ্বায়িত্বে থেকে জনগনের সেবা করে যাচ্ছন।

অধ্যাপক মামুন আল মাহতাবের স্ত্রী বিশিষ্ট চক্ষু বিশেষজ্ঞ শহীদ বুদ্ধিজীবী ডা. আলীম চৌধুরীর মেয়ে ডা. নুজহাত চৌধুরী নিজেও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের চক্ষুবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক। তাঁর মা শিক্ষাবিদ ও ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির ভাইস প্রেসিডেন্ট শ্যামলী নাসরিন চৌধুরী। নুজহাত চৌধুরী ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এবং প্রজন্ম একাত্তরের প্রতিষ্ঠাতা সাংস্কৃতিক সম্পাদক। ডাক্তার এই দম্পতি টাইম নউজ ইউকে বিডি এবং বিভিন্ন গণমাধ্যম সহ তাদের জন্য যারা দোয়া- আশীর্বাদ করেছেন তাদের কে ধন্যবাদ জানান এবং সারাজীবন যেন এভাবে জনগনের সেবা করতে পারেন সেই দোয়া কামনা করেন।

ট্যাগস

দেশের জনপ্রিয় ডাক্তার দম্পতি অধ্যাপক মামুন আল মাহতাব ও নুজহাত চৌধুরী করোনা মুক্ত।

আপডেট সময় ০৮:২৫:২৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৭ জুন ২০২০

বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাস থেকে মুক্তি পেলেন দেশের সেরা মেডিকেল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালের চিকিৎসক দম্পতি অধ্যাপক মামুন আল মাহতাব স্বপ্নীল ও নুজহাত চৌধুর।।

ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর ডাক্তার এই দম্পতির জন্য দেশের বিভিন্ন ধর্মীয় উপসনালয়ে দোয়া, মোনাজাত ও প্রার্থনা করা হয়। অধ্যাপক মামুন আল মাহতাব ও তার স্ত্রী দু’জনেই এই প্রানঘাতী করোনা ভাইরাসের আক্রমন থেকে কিভাবে দেশবাসীকে সচেতন করা যায় এবং কিভাবে সচেতন থাকা যায় এ নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যম সহ সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে উপদেশ দিয়েছেন এবং দিয়ে যাচ্ছেন। অধ্যাপক মামুন আল মাহতাব স্বপ্নীল গত ১৩ জুন ও তাঁর স্ত্রী সহকারী অধ্যাপক নুজহাত চৌধুরী এবং অষ্টম শ্রেণি পড়ুয়া ছেলে গত ১৪ জুন নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন। করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর, তারা নিজ বাসাতেই অবস্থান করছিলেন। একসময়ের সাবেক তুখোড় ছাত্রনেতা অধ্যাপক মামুন আল মাহতাব একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি সহ বিভিন্ন সংঘটনের গুরুত্বপূর্ণ দ্বায়িত্বে থেকে জনগনের সেবা করে যাচ্ছন।

অধ্যাপক মামুন আল মাহতাবের স্ত্রী বিশিষ্ট চক্ষু বিশেষজ্ঞ শহীদ বুদ্ধিজীবী ডা. আলীম চৌধুরীর মেয়ে ডা. নুজহাত চৌধুরী নিজেও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের চক্ষুবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক। তাঁর মা শিক্ষাবিদ ও ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির ভাইস প্রেসিডেন্ট শ্যামলী নাসরিন চৌধুরী। নুজহাত চৌধুরী ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এবং প্রজন্ম একাত্তরের প্রতিষ্ঠাতা সাংস্কৃতিক সম্পাদক। ডাক্তার এই দম্পতি টাইম নউজ ইউকে বিডি এবং বিভিন্ন গণমাধ্যম সহ তাদের জন্য যারা দোয়া- আশীর্বাদ করেছেন তাদের কে ধন্যবাদ জানান এবং সারাজীবন যেন এভাবে জনগনের সেবা করতে পারেন সেই দোয়া কামনা করেন।