ঢাকা ০১:১৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

‘আইপিএলের চেয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজনের সম্ভাবনা উজ্জ্বল’

অস্ট্রেলিয়া সরকার ভাবছে আগামী মাস থেকেই ক্রীড়া ভেন্যুতে সর্বাধিক ১০ হাজার করে দর্শক প্রবেশের অনুমতি দেওয়ায়। তাই সুনীল গাভাস্কার মনে করছেন আইপিএলের চেয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজনের সম্ভাবনাটা উজ্জ্বল হয়ে উঠছে।

করোনা পরবর্তী যুগে ফের ধীরে ধীরে বিশ্বজুড়ে অনেক খেলাই আবার মাঠে ফিরেছে। যদিও খেলা হচ্ছে দর্শকহীনভাবে। আর এ অবস্থায় অস্ট্রেলিয়ায় আগামী ১৮ অক্টোবর থেকে ১৫ নভেম্বর পর্যন্ত সময়ে নির্ধারিত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আয়োজনটাকে বাঁচিয়ে রাখতে চায় সে দেশের সরকার। তাই এখন থেকে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন বলেছেন, প্রাথমিকভাবে সরকারের চিন্তা হলো যে স্টেডিয়ামগুলোর ধারণক্ষমতা ৪০ হাজারের নিচে, সেসব স্টেডিয়ামে সর্বোচ্চ ১০ হাজার দর্শক প্রবেশের অনুমতি দেওয়ায়। তাই গাভাস্কান বলছেন, ‘অস্ট্রেলিয়া সরকারের এই ঘোষণার পর, সেখানে অক্টোবরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজনের একটা সম্ভাবনা জেগে উঠেছে। হয়তো দলগুলোকে তিন সপ্তাহ আগে পৌঁছাতে হবে, প্র্যাকটিস ম্যাচ খেলতে হবে সাত দিনের আর কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে ১৪ দিন।’

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

‘আইপিএলের চেয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজনের সম্ভাবনা উজ্জ্বল’

আপডেট সময় ০৭:৫২:৩২ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুন ২০২০

অস্ট্রেলিয়া সরকার ভাবছে আগামী মাস থেকেই ক্রীড়া ভেন্যুতে সর্বাধিক ১০ হাজার করে দর্শক প্রবেশের অনুমতি দেওয়ায়। তাই সুনীল গাভাস্কার মনে করছেন আইপিএলের চেয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজনের সম্ভাবনাটা উজ্জ্বল হয়ে উঠছে।

করোনা পরবর্তী যুগে ফের ধীরে ধীরে বিশ্বজুড়ে অনেক খেলাই আবার মাঠে ফিরেছে। যদিও খেলা হচ্ছে দর্শকহীনভাবে। আর এ অবস্থায় অস্ট্রেলিয়ায় আগামী ১৮ অক্টোবর থেকে ১৫ নভেম্বর পর্যন্ত সময়ে নির্ধারিত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আয়োজনটাকে বাঁচিয়ে রাখতে চায় সে দেশের সরকার। তাই এখন থেকে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন বলেছেন, প্রাথমিকভাবে সরকারের চিন্তা হলো যে স্টেডিয়ামগুলোর ধারণক্ষমতা ৪০ হাজারের নিচে, সেসব স্টেডিয়ামে সর্বোচ্চ ১০ হাজার দর্শক প্রবেশের অনুমতি দেওয়ায়। তাই গাভাস্কান বলছেন, ‘অস্ট্রেলিয়া সরকারের এই ঘোষণার পর, সেখানে অক্টোবরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজনের একটা সম্ভাবনা জেগে উঠেছে। হয়তো দলগুলোকে তিন সপ্তাহ আগে পৌঁছাতে হবে, প্র্যাকটিস ম্যাচ খেলতে হবে সাত দিনের আর কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে ১৪ দিন।’